channel 24

সর্বশেষ

  • জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে...

  • নিউইয়র্ক যাওয়ার পথে যাত্রাবিরতিতে লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী

  • কক্সবাজারের উদ্দেশে সড়ক পথে আ.লীগের সাংগঠনিক সফর শুরু...

  • নির্বাচনে জনপ্রিয় ব্যক্তিদের মনোনয়ন দেয়া হবে: কুমিল্লায় সেতুমন্ত্রী

  • রেলপথের মতো সড়কপথের প্রচারণাতেও ব্যর্থ হবে আ.লীগ: রিজভী

  • ২০১৮'র শেষ অথবা ২০১৯'র শুরুতে জাতীয় নির্বাচন: সিইসি...

  • আইনগত ভিত্তি পেলেই ইভিএম ব্যবহার করা হবে

  • নরসিংদীতে ব্রহ্মপুত্র নদে নৌকাডুবি; ভাইবোনসহ ৩ জনের মৃত্যু

কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্তদের অত্যাবশ্যকীয় যন্ত্র 'ডিফিবরিলেটর'

কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্তদের অত্যাবশ্যকীয় যন্ত্র 'ডিফিবরিলেটর'

হাসপাতালের বাইরে 'কারডিয়াক অ্যারেস্টে' আক্রান্ত হলে, আরোগ্য লাভের হার প্রতি ১০ জনে মাত্র একজন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কারডিয়াক অ্যারেস্ট চিহ্নিত করা ও সাথে সাথে ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ থাকলে, মৃত্যুর এই হার কমানো সম্ভব।

ডিফিবরিলেটর। কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্তদের চিকিৎসায় অত্যাবশ্যকীয় যন্ত্র। হাসপাতালের বাইরে এই রোগে আক্রান্তদের বেশিরভাগকেই সারিয়ে তোলা সম্ভব সঠিকভাবে ডিফিবরিলেটরে চিকিৎসা দেয়া গেলে। ডিফিবরিলেটরের এই সুবিধা পেয়ে যেন দ্বিতীয়বার জীবন ফিরে পেয়েছেন যুক্তরাজ্যের অ্যালান থম্পসন। কিছু দিন আগে, স্মিসবি এলাকায় সাইকেল চালাতে গিয়ে আক্রান্ত হন কারডিয়াক অ্যারেস্টে। হাসপাতাল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে এঘটনা ঘটলেও ডিফিবরিলেটরের চিকিৎসায় বেঁচে ওঠেন তিনি।
হঠাৎ আমার হৃদপিন্ড কাজ করা বন্ধ করে দেয়। চারদিক ঝাপসা হয়ে আসছিলো। আশপাশের লোকজন বলছিলো যে, আমি মরতে বসেছি।

থম্পসনের কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে প্যারামেডিক্সরা ঘটনাস্থলে পৌছানোর অনেক আগেই সারিয়ে তোলা হয় তাকে। আর এতে সহায়তা করেন স্থানীয় চিকিৎসক ডা. রুথ গ্রিন। আমি একজন চিকিৎসক। লিইসিস্টার থেকে ডারবিশায়ারে বসবাস শুরুর পর এখানকার কাউন্সিলকে একটি ডিফিবরিলেটর কিনতে বাধ্য করি আমি। আর সেটির কারণেই অ্যালান প্রাণ ফিরে পেয়েছে।

অথচ অ্যালানের মতো ভাগ্যবান সবাই নন। যুক্তরাজ্যে হাসপাতালের বাইরে যারা কারডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্ত হন তাদের প্রতি ১০ জনের মধ্যে ১ জনেরও বেচে থাকার সম্ভাবনা কমে যায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যদি দ্রুততম সময়ে ডিফিবরিলেটরের চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ বাড়ানো যায়, তাহলে এই হার কমানো সম্ভব। এজন্যই যুক্তরাজ্যে যত ডিফিবরিলেটর যন্ত্র আছে সেগুলোর অবস্থান চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। যাতে কারডিয়াক অ্যারেস্টে কেউ আক্রান্ত হলে সে সাথে সাথে ডিফিবরিলেটরের অবস্থান জেনে সেখানে পৌছাতে পারে।

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর