channel 24

সর্বশেষ

  • বনানী কবরস্থানে শ্রীলঙ্কায় নিহত শিশু জায়ানের দাফন সম্পন্ন

  • লন্ডনে অর্থপাচার মামলায় তারেক রহমানের বন্ধু ব্যবসায়ী...

  • গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের ৭ বছরের কারাদণ্ড; ১২ কোটি টাকা জরিমানা

  • শ্রীলঙ্কা ট্র্যাজেডি: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫৯; আটক ৫৮...

  • নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হবে: প্রেসিডেন্ট...

  • ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই শ্রীলঙ্কায় হামলা...

  • এমন কোনো গোয়েন্দা তথ্য ছিল না: নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: নেত্রকোণার সোহরাব ফকিরসহ ২ জনের মৃত্যুদণ্ড..

  • একাত্তরের গণহত্যার স্বীকৃতি দিতে বিশ্বসম্প্রদায়ের প্রতি...

  • আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের আহবান

  • পাবনায় ৩ পুলিশ হত্যা মামলায় ৮ জনের যাবজ্জীবন; খালাস ৩

  • রাজধানীর নিউমার্কেট মোড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত...

  • সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের আজও অবস্থান; যান চলাচল বন্ধ

  • চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া যত্রতত্র অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধ চেয়ে রিট

গর্ভধারণের ৩৯ সপ্তাহে সন্তান জন্মদান মা ও শিশুর জন্য ইতিবাচক: গবেষক

গর্ভধারণের ৩৯ সপ্তাহে সন্তান জন্মদান মা ও শিশুর জন্য ইতিবাচক: গবেষক

গর্ভধারণের ৩৯ সপ্তাহে সন্তান জন্মদান, মা ও শিশু দুজনের জন্যই ইতিবাচক। এতে সিজারের ঝুঁকি এড়িয়ে যেতে পারেন, প্রথমবার গর্ভধারণকারী মায়েরা। এক গবেষণায় এমন দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের একদল গবেষক। তবে, এতে ভিন্নমতও রয়েছে অনেক চিকিৎসকের। তাদের পরামর্শ, যেকোন সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে চিকিৎসকের সাথে আলোচনা করা উচিত মায়েদের।

বর্তমান সময়ে সন্তান জন্মদানে বাড়ছে সিজারের সংখ্যা। তবে ৩৯ সপ্তাহে ডেলিভারি করানো সম্ভব হলে, সিজার এড়িয়ে যেতে পারবেন প্রথমবার গর্ভধারণ করা নারীরা। এমনটাই দাবি যুক্তরাষ্ট্রের একদল চিকিৎসকের। ৪১টি হাসপাতালের ৬১ হাজার নারীর উপর গবেষণা চালিয়ে, এ তথ্য প্রকাশ করেছে, নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন।

শিকাগোর নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ওবি-জিওয়াইএন বিশেষজ্ঞ ডা. উইলিয়াম গ্রবম্যান বলেন,
'বহু বছর ধরে ধারণা ছিলো, নির্দিষ্ট সময়ের আগে প্রসব ব্যথা হলে তা শিশুর জন্য খারাপ। আসলে এটি সত্য নয়।'

গবেষণা বলছে, ৩৯ সপ্তাহে শিশু পরিপূর্ণ হয়। এ সময়ে সন্তান জন্মদান সবচেয়ে কম ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ এই সময়ে নারীদের মধ্যে সিজার কিংবা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কম থাকে। এছাড়া হাসপাতালেও কম সময় থাকতে হয়।

যারা ৩৯, ৪০, কিংবা ৪১ সপ্তাহের পর যত বেশি অপেক্ষা করা হবে, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য ঝুঁকি তত বাড়বে।তবে অনেক চিকিৎসক বলছেন, শুধু একটি গবেষণা ফলের উপর ভিত্তি করে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত নয়। বরং কোনো জটিলতা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।

নিউইয়র্কের গায়নোকোলজিস্ট ডা. সিনথিয়া গিয়াম্পি-বানারম্যান বলেন, 'সব গর্ভবতী নারীর শারীরিক অবস্থা এক থাকে না। গর্ভাবস্থায় অনেকেরই শারীরিক নানা জটিলতা দেখা দেয়। এক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিহেত হবে।'

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর