channel 24

সর্বশেষ

  • জি এম কাদের এখন ভারপ্রাপ্ত নন, পূর্ণাঙ্গ চেয়ারম্যান: জাতীয় পার্টি...

  • দলে বিভেদ না থাকার দাবি নতুন চেয়ারম্যানের

  • ধর্ষণ মামলা ১৮০ দিনের মধ্যে শেষ করতে ব্যবস্থা গ্রহণে...

  • নিম্ন আদালতের বিচারকদের হাইকোর্টের নির্দেশ

  • রিফাত হত্যা: তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজী গ্রেপ্তার

  • উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি...

  • বাঁধ ভেঙে প্লাবিত গাইবান্ধা, কুড়িগ্রামের শতাধিক গ্রাম...

  • যমুনা, ধলেশ্বরী এবং ঝিনাই নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে...

  • তলিয়ে গেছে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর ও বগুড়ার নিম্নাঞ্চল...

  • জামালপুর-বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ও দেওয়ানগঞ্জ রুটে রেল যোগাযোগ বন্ধ

  • বৈরী আবহাওয়া ও অতিরিক্ত স্রোতের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে...

  • ফেরি চলাচল ব্যাহত; আটকা পড়েছে এক হাজারের বেশি যানবাহন

  • রাজধানীতে তিন রুটে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত...

  • চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন; শুনানি আজ

  • বাস মালিকদের দ্বন্দ্ব: সিরাজগঞ্জে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ

কুকুরের মুখের লালা থেকে ছড়াচ্ছে ক্যাপনোসাইটোফাগা নামে ব্যাকটেরিয়া

কুকুরের মুখের লালা থেকে ছড়াচ্ছে ক্যাপনোসাইটোফাগা নামে ব্যাকটেরিয়া

কুকুরের মুখের লালা থেকে ছড়াচ্ছে, ক্যাপনোসাইটোফাগা ক্যানিমোরসেস নামে ব্যাকটেরিয়া। কেউ আক্রান্ত হওয়ার ৩ থেকে ৫ দিনের মাথায় জ্বর, মাংসপেশীতে ব্যথা, বমি, শরীরে দুর্বলতা এবং অনেকক্ষেত্রে ডায়রিয়া দেখা দেয়। ৯৯ ভাগ ক্ষেত্রেই এটি ক্ষতিকর না হলেও, কিছুক্ষেত্রে রক্তকে দূষিত করে তোলে এই ব্যাকটেরিয়া। ক্যাপনোসাইটোফাগা থেকে বাঁচতে কুকুর বিড়াল পোষার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার পরামর্শ মার্কিন চিকিৎসকদের।

পোষা প্রাণী হিসেবে কুকুর বেশ জনপ্রিয়। তবে, এই কুকুরই হতে পারে, ভয়াবহ রক্তবাহিত ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের কারণ।

কুকুরের মুখের লালা থেকে ছড়ানো ক্যাপনোসাইটোফাগা ভাইরাসে এখন মৃত্যুপথযাত্রী, যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনের বাসিন্দা গ্রেগ মেনটিউফেল। ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমনে তার বুক ও মুখমণ্ডলসহ পুরো শরীর কালশিটে দাগ দেখা দেয়। শরীরের অনেকাংশে পচন ধরে যাওয়ায় কেটে ফেলতে হয়েছে, দুই পা এবং হাত।

গ্রেগের স্ত্রীর দাবি, ফ্লুতে আক্রান্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত অনেকটাই স্বাস্থ্যবান ছিলেন, ৪৮ বছর বয়সী মেনটিউফেল।

অসুস্থ গ্রেগের স্ত্রী ডন ম্যানটুয়েফেল বলেন, 'যদি কারো মুখে এ গল্প শুনতাম তাহলে বিশ্বাস করতাম না, যেহেতু আমি নিজে স্বচক্ষে দেখেছি। আমাদের পোষা কুকুরসহ মোট ৮ টি কুকুরের সংস্পর্শে ছিলো গ্রেগ।' তাকে জিজ্ঞেসও করেছি, কোন কুকুর থেকে এটা ছড়িয়েছে, কিন্তু গ্রেগ মনে করতে পারছে না।   

চিকিৎসাবিজ্ঞানে রক্তবাহিত এ ব্যাকটেরিয়ার নাম, ক্যাপনোসাইটোফাগা ক্যানিমোরসেস। কুকুর-বিড়ালের লালা থেকে ছড়ায় এটি। আক্রান্ত হওয়ার ৩ থেকে ৫ দিনের মাথায় জ্বর, মাংসপেশীতে ব্যথা, বমি, শরীরে দুর্বলতা এবং অনেকক্ষেত্রে ডায়রিয়া দেখা দেয়। ৯৯ ভাগ ক্ষেত্রেই এটি ক্ষতিকর না হলেও, অনেকাংশেই রক্তকে দূষিত করে তোলে ব্যাকটেরিয়া। ফলে মৃত্যুও ঘটে আক্রান্ত ব্যক্তির।

ফ্রোয়েডট্রেট অ্যান্ড দ্য মেডিকেল কলেজ অব উইসকনসিনের রোগতত্ত্ববিদ ডা. সিলভিয়া মুনোজ প্রাইস বলেন, 'পোষাপ্রাণীর মালিকদের বলতে চাই, মটরগাড়ি চাপায় কারো প্রাণহানি হলে, সেক্ষেত্রে এ ধরনের ভাইরাস সংক্রমনের আশঙ্কা থাকে। তাই, বিরল এই ভাইরাস কীভাবে প্রাণঘাতী হয়ে উঠলো তা নিয়ে আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করছি।'

এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে বাঁচতে, কুকুর-বিড়াল পোষায় আরও সতর্ক হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর