channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

মোজাইক ভেকসিন নামে এইচআইভির ওষুধ আবিষ্কার

মোজাইক ভেকসিন নামে এইচআইভির ওষুধ আবিষ্কার

পুরো বিশ্বে এইডস আক্রান্ত ৩৭ মিলিয়ন মানুষ। এতে প্রতিবছর যোগ হচ্ছে আরো ১৮ লাখ। এই ভয়াবহতা মোকাবেলায় সম্প্রতি, মোজাইক ভ্যাক্সিন নামে এক ধরণের ওষুধ আবিষ্কারের কথা জানিয়েছেন গবেষকরা। তাদের দাবি, মানব দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে সবল করে এইচআইভির আক্রমণ ঠেকাতে সক্ষম এই ওষুধ।

হিউম্যান ইমিউনোডেফিসিয়েন্সি ভাইরাস বা এইচআইভি। মানব দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে প্রাণঘাতি এ ভাইরাস।

এ ভাইরাস চিহ্নিতের কয়েক দশক পার হলেও, একক কোন ওষুধ বা সন্তোষজনক কোনো চিকিৎসা পদ্ধতির খোঁজ মেলেনি এখনো। তবে সম্প্রতি, এইডস প্রতিরোধে, মোজাইক ভেকসিন নামে নতুন ধরণের ওষুধ আবিষ্কারের দাবি করেছেন, বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি, এইচআইভি ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সক্ষম এই ওষুধ। তবে, টিকা নয় বরং নিয়মিত বা প্রতিদিনই নিতে হবে এটি।

বিভিন্ন ধরণের এইচআইভি ভাইরাসের ক্ষুদ্রাংশের সংমিশ্রণে তৈরি এই প্রতিষেধক। বিজ্ঞানীদের প্রত্যাশা, সারা বিশ্বের হাজারো রকমের এইচআইভি ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সক্ষম হবে, এটি। এরইমধ্যে, যুক্তরাষ্ট্র, উগান্ডা, দক্ষিণ আফ্রিকা ও থাইল্যান্ডের ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সিদের ওপর ৪৮ সপ্তাহ ধরে চলে এটির পরীক্ষা। পরীক্ষায় এদের সবার মধ্যেই এইচআইভি নিরোধক রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে।

এর সাথেই রেসাস নামে এক ধরণের বানরের উপরেও এই পরীক্ষা চালানো হয়। এইচআইভির মতোই আরেক ভাইরাস, সিমিয়ান-হিউম্যান ইমিউনো-ডেফিসিয়েন্সি ভাইরাস প্রতিরোধে এই ওষুধ দেয়া হয়। পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৭২টি বানরের মধ্যে ৬৭ ভাগকেই ওই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করেছে মোজাইক ভেকসিন।

হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের অধ্যাপক ড্যান বরোক বলেন, 'এ পর্যন্ত পাওয়া সফলতায় আমরা আশাবাদী। তবে আমরা খুবই সতর্কতার সাথে এগুচ্ছি। কারণ এখনো আমরা সম্পূর্ণ নিশ্চিত নই যে, দীর্ঘমেয়াদে এটি প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করবে কিনা।'

তবে এর ফলাফল এখনো গবেষণা পর্যায়ে রয়েছে। এটির আরো উন্নয়নের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার এইডসের ঝুঁকির মুখে রয়েছে এমন ২৬শ নারীর উপর এ ওষুধ প্রয়োগ করা হবে।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর