channel 24

সর্বশেষ

  • ভূমিকম্পের আগাম বার্তা দেয়ার যন্ত্র উদ্ভাবন

  • কৃষিঋণ নীতিমালা ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক

  • ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু ২৯ জুলাই

  • উন্মত্ত মানুষের বর্বরতায় নিহত মায়ের অপেক্ষায় তুবা

  • মেয়াদোত্তীর্ণ ফিটনেসবিহীন গাড়ী ৪লাখ ৭৯ হাজার ৩২০টি: বিআরটিএ

  • ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের মুখে ইয়েমেন

  • ট্রাস্টের সম্পত্তি নয় এরিককে ফিরে পেতে চান বিদিশা

  • সংসদে যোগদান নিয়ে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেব বিএনপি'র

  • দক্ষিণ এশিয়ায় বিদেশি বিনিয়োগের অন্যতম কেন্দ্র হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

  • রেনু হত্যায় দোষীদের বিচার চান স্বজনরা

  • মেহেরপুরে দুদল মাদক ব্যবসায়ীর গোলাগুলিতে নিহত ১

  • মাতৃগর্ভে থাকতেই ঘাতকের বুলেটে ম্লান শিশু সুরাইয়ার জীবন

  • বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও কয়েকটি নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে

  • চট্টগ্রামে কালুরঘাট সেতুর জরাজীর্ণতায় বাড়ছে দুর্ঘটনার আশঙ্কা

  • ঘুষ কেলেঙ্কারির অভিযোগে দুদকের পরিচালক বাছির গ্রেফতার

সংগীত দুনিয়ায় মুকুটহীন সম্রাট ছিলেন মাইকেল জ্যাকসন

সংগীত দুনিয়ায় মুকুটহীন সম্রাট ছিলেন মাইকেল জ্যাকসন

যার জাদুমাখা কণ্ঠ আর চোখ ধাঁধাঁনো ডান্সস্টেপ হৃদয়ে কাপঁন ধরিয়ে দিতো সঙ্গীতপ্রেমীদের। তিনি হলেন পপসাম্রাজ্যের মুকুটহীন সম্রাট মাইকেল জ্যাকসন। পৃথিবীতে এমন মানুষ খুব কমই আছেন যিনি মাইকেলের মিউজিকে মাথা দোলাননি। গেয়ে ওঠেননি তার সুরে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) পপসঙ্গীতের এই মহামানবের দশম মৃত্যুবার্ষিকী। তার প্রতি রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা।

পৃথিবীকে যেন চাঁদের মাটি ভাবতেন মাইকেল জ্যাকসন। তাই তো বিখ্যাত তার মুনওয়াক। ভৌগোলিক সীমারেখা ছাড়িয়ে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে পৃথিবীর বিশাল অংশই যেনো অবিভক্ত মাইকেল জ্যাকসনের গানে।

জন্ম আফ্র-আমেরিকান পরিবারে ১৯৫৮ সালের ২৯ আগস্ট। দশ ভাইবোনের মধ্যে তার অবস্থান ছিলো আট-এ। নেশার পাশাপাশি গানটাকে পেশা হিসেবে বেছে নেন ১৯৬৩ সালে।

গিনেস বুক ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস বলছে, মাইকেল জ্যাকসনই সর্বকালের সবচেয়ে সফল শিল্পী। যার ঝুলিতে পড়েছে ১৩ টি গ্র্যামি ও ১৩ টি একক সংগীত পুরস্কার। ২বার রক অ্যান্ড রোল হল অফ ফেইমে নির্বাচিত হওয়ার পাশাপাশি ১০০ মিলিয়নের বেশি বার বিক্রি হয়েছে জ্যাকসনের অ্যালবাম।

মাইকেল জ্যাকসনই প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন সংগীত শিল্পী, যিনি জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন এমটিভিতে। পাল্টে দিয়েছিলেন পপ সংগীত এবং মিউজিক ভিডিওর ধারণা।

ব্যক্তি জীবনে নানা কেলেঙ্কারি তাকে ঘিরে ধরলেও কখনও হার মানেননি মাইকেল।

তবে মারা যাওয়ার আগে প্রচুর ধার দেনায় ডুবে গিয়েছিলেন তিনি। ২০০৯ সালের ১৩ জুলাই ওয়ার্ল্ড ট্যুর দিস ইজ ইট দিয়ে বিপন্ন ক্যারিয়ার সচল করতে চেয়েছিলেন।

কিন্তু সেই ট্যুর শুরুর দুই সপ্তাহ আগেই লস এ্যান্জেলসের একটি হাসপাতালে অনেকটা নিভৃতেই বিদায় নেন জ্যাকসন।

তার মৃত্যু আজো রয়ে গেছে রহস্যাবৃত। তার পরেও কোটি ভক্তের হৃদয়ে আজন্ম বেঁচে থাকবেন পপসম্রাট মাইকেল জ্যাকসন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর