channel 24

ব্রেকিং নিউজ

  • নুসরাত হত্যা: সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার

সত্যের পথে জাগ্রত এক দূরন্ত অশ্বারোহী নজরুল

সত্যের পথে জাগ্রত এক দূরন্ত অশ্বারোহী নজরুল

শুধু দ্রোহ নয়। প্রেম,মানবতা কোথায় ছিল না কবি নজরুলের বিচরণ। তার সব্যসাচী প্রতিভায় মুগ্ধ ছিলেন রবীন্দ্রনাথসহ দেশের অধিকাংশ কবি-সাহিত্যিকই। নজরুলের লেখনিতে মুক্তি বা স্বাধীনতার চেতনা ছিলো স্পষ্ট। মানুষের অত্যাচার, সামাজিক অনাচার ও শোষণের বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর।

দ্রোহের আগুনে পুড়েছেন তিনি পুড়িয়েছেন হাজার শব্দে গাঁথা বিদ্রোহের হাজারো পঙ্তিমালা।

তাইতো তিনি বিদ্রোহী চিরদুর্দম, দূর্বিনীত, নৃশংস, মহাপ্রলয়ের নটরাজ, সাইক্লোন,ধ্বংস কিংবা মুক্ত জীবনানন্দ। ধূমকেতুর মতো বর্ণময় জীবনে, তিনি ছিলেন সত্যের পথে জাগ্রত এক দূরন্ত অশ্বারোহী। দুরন্ত আর চঞ্চলতায় ভরপুর তারুণ্য, যার ব্রতই ছিলো দুর্বার গতিতে বিশ্ব জয়ের।
 
সংবাদপত্র কিংবা সাহিত্যে যখন ব্রিটিশ বিরোধীতায় জেল-ফাঁস আর নিষিদ্ধ হওয়ার ভয়। তখনও যাপিত জীবনে বাঁধনহারা নজরুল সাহিত্যেও ছিলেন অকুতোভয় দুর্দমনীয়।

১৯২০ সালে নবযুগ পত্রিকায় প্রকাশিত হয় নজরুলের মুহাজিরীর হত্যার জন্য দায়ী কে প্রবন্ধটি। যা সে সময় আলোড়ন তুলেছিল। নজরদারী শুরু হয় বিদ্রোহীর ওপর। রাজবন্দীর জবানবন্দীতে তিনি বলেছেন আমার বানী সত্যের প্রকাশিকা ভগবানের বানী। মুক্তিতে গেথে ছিলেন সৃষ্টি সুখের উল্লাসের মালা।

সময়টা ১৯২২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর 'ধুমকেতু' পত্রিকার সম্পাদকীয় পাতা। প্রথম বাঙালি সাহিত্যিক হিসেবে নজরুল চেয়ে বসলেন, ভারতের স্বাধীনতা। পরিনামে বিদ্রোহী কবিকে কারাগারের অন্ধকারে কাটাতে হয়েছে দিনের পর দিন। নিষিদ্ধ হয় তার বইও।

ঝাকড়া চুলের বাবরি দোলানো এই কবির লেখনিতে ছিলো পরাধীনতার শৃঙ্খল ভাঙার গান। স্বাধীনতার জয়গানে এই বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর, সময়ের রদবদলে হয়ে উঠুক প্রজন্মের কণ্ঠস্বর।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর