channel 24

সর্বশেষ

  • শুদ্ধি অভিযানে টার্গেটকৃতদের আইনের আওতায় আনা হবে: কাদের

  • সড়ক দুর্ঘটনা: ঝিনাইদহে ২, হবিগঞ্জে ২ ও মৌলভীবাজারে নারী নিহত

  • চট্টগ্রামের নিমতলীতে একটি বাসা থেকে বাবা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

  • আর্থিক সংকট: শনি ও রোববার বন্ধ থাকবে জাতিসংঘ সদর দপ্তর

দুর্দান্ত অ্যাকশন ছবির কারিগর ছিলেন শহীদুল ইসলাম খোকন

দুর্দান্ত অ্যাকশন ছবির কারিগর ছিলেন শহীদুল ইসলাম খোকন

শুধু নায়ক কিংবা নায়িকা নয়; পরিচালকের নামেও যে ব্যবসায়িক সাফল্য পায় চলচ্চিত্র তা প্রমাণ করেছিলেন শহীদুল ইসলাম খোকন। আশি আর নব্বইয়ের দশকে এই পরিচালকের নামেই প্রেক্ষাগৃহে নামতো দর্শকের ঢল। অসংখ্য সফল ছবির এই কারিগরের হাত ধরে বাংলা চলচ্চিত্রে পা রেখেছেন রুবেল, শিমলা, মিশেলার মতো তারকারা।

মৌলিক গল্প আর দুর্দান্ত অ্যাকশনে ভরপুর চলচ্চিত্রের এক অনন্য কারিগর শহীদুল ইসলাম খোকন। চলচ্চিত্রের রূপালি উঠোনে তার যাত্রা শুরু ১৯৭৪ সালে সহকারী পরিচালক হিসেবে। একক পরিচালনায় নির্মিত প্রথম সিনেমা 'রক্তের বন্দী', যদিও সাফল্যে ধরা দেয় তৃতীয় ছবি 'লড়াকু'তে। এরপরের গল্পটা শুধুই এগিয়ে যাওয়ার। আশি আর নব্বইয়ের দশকে শহীদুল ইসলাম খোকনের নামেই প্রেক্ষাগৃহে নামতো দর্শকের ঢল। 

তিন যুগেরও বেশি সময়ের ক্যারিয়ারে নির্মাণ করেছেন 'ভণ্ড', 'ম্যাডাম ফুলি', 'পালাবি কোথায়' কিংবা 'ঘাতক', 'লাল-সবুজে'র মতো ৪০টি চলচ্চিত্র। অ্যাকশন-নির্ভর সিনেমার পাশাপাশি ৫২'র ভাষা আন্দোলন আর মুক্তিযুদ্ধকে ফ্রেমবন্দি করেছেন তিনি।

শহীদুল ইসলাম খোকনের হাত ধরেই ঢালিউড পেয়েছে রুবেল, ড্যানি সিডাক, মিশেলা, শিমলার মতো অভিনয়শিল্পীদের। শুধু পেছনেই নয় কাজ করেছেন ক্যামেরার সামনেও। ছিলেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি। 

২০১৬ সালে রোগে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান শহীদুল ইসলাম খোকন। ৬২তম জন্মবার্ষিকীতে তার প্রতি রইলো শ্রদ্ধা। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর