channel 24

সর্বশেষ

  • সম্পদের তথ্য গোপন: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য...

  • ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার ৩ বছরের কারাদণ্ড

  • এবার সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে...

  • কোনো পর্যবেক্ষণ সংস্থা দায়িত্ব পালনে অনিয়ম করলে ব্যবস্থা: ইসি সচিব

  • তৃতীয় দিনের মতো চলছে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার

  • গুলশানে জাপার মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠান চলছে...

  • জাতীয় পার্টি যে জোটে তারাই ক্ষমতায় আসবে: রুহুল আমিন হাওলাদার

দেশীয় চলচ্চিত্রে ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস

দেশীয় চলচ্চিত্রে ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস

সিনেমায় আমরা এমন অনেক কিছুই দেখি, যা আমাদের বিস্মিত করে। মনে প্রশ্ন জাগে; এও কি সম্ভব ?? হ্যাঁ সবই সম্ভব আর এই অসম্ভবকে সম্ভব করে ভিএফএক্স বা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস।

কিন্তু দেশীয় চলচ্চিত্রে এই প্রযুক্তির ব্যবহার ও মান নিয়ে বরাবরই উঠে প্রশ্ন। এ নিয়ে কি বলছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা??
এমন অবিশ্বাস্য কতো ঘটনাই না ঘটে সিনেমার রঙিন পর্দায়। যার অধিকাংশই সম্ভব হয় ভিএফএক্স বা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টসের সাহায্যে যা কল্পিত আর কৃত্রিম কোনো দৃশ্যকে দেয় বাস্তবের রুপ।
কম্পিউটার সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে হলিউড কিংবা বলিউডের সিনেমাতে হরহামেশাই দেখতে পাওয়া যায় এমন ভিজুয়াল ইফেক্টসের কাজ।
এক্ষেত্রে যদিও পিছিয়ে নেয় ঢালিউড। তবুও, দেশীয় সিনেমায় ব্যবহৃত ভিএফক্সের মান নিয়ে রয়ে গেছে প্রশ্ন।
ভিএফএক্স আর্টিস্ট মানস রায়ের মতে, দেশে ভিজ্যুয়াল ইফেক্টসে দক্ষ লোকবল থাকলেও, পর্যাপ্ত বাজেট আর সময়ের অভাবে, সিনেমায় নেই তাঁর যথার্থ প্রতিফলন।
বাস্তবতা স্বীকার করে নিলেন তরুণ পরিচালক সৈকত নাসিরও। জানালেন, বাংলা চলচ্চিত্রের বয়স ছয় দশকেরও বেশি। কিন্তু এই দীর্ঘ সময়েও পরিচালক-প্রযোজকদের পরদেশ নির্ভরশীলতায় ভিজ্যুয়াল ইফেক্টসের ক্ষেত্রে আসেনি কাঙ্খিত অগ্রগতি।
দেশীয় সিনেমায় জোয়ার আনতে ভিএফএক্স নির্ভর মানসম্মত চলচ্চিত্র রাখতে পারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। সেক্ষেত্রে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি, বাড়তি মনোযোগ প্রয়োজন পরিচালক-প্রযোজকদের এমনটাই অভিমত সংশ্লিষ্টদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর