channel 24

সর্বশেষ

  • নুসরাত হত্যা: সাইবার ট্রাইব্যুনালে ফেনীর সোনাগাজীর সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে রায় ২৮ নভেম্বর

  • সড়ক পরিবহন আইন স্থগিতসহ ৯ দফা দাবিতে...

  • কর্মবিরতিতে ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ...

  • দেশের বিভিন্ন স্থানে পণ্যবাহী যান ও বাস চলাচল বন্ধ...

  • জনগণকে দুর্ভোগে না ফেলতে মালিক-শ্রমিককে সেতুমন্ত্রীর অনুরোধ

  • রাত ৯টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিকদের বৈঠক

  • নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের আগের কমিটিই বহাল...

  • সভাপতি খায়রুল আনম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম

  • ১৫৯ দুর্নীতিবাজের তালিকা করেছে দুদক: চেয়ারম্যান

  • বিমানে আমদানি করা পেঁয়াজের প্রথম চালান রাত ১টায় ও...

  • কাল সন্ধ্যা ৬টায় দ্বিতীয় চালান আসবে: বাণিজ্য মন্ত্রণালয়

  • সাগিরা মোর্শেদ হত্যার রহস্য উন্মোচনের ফলে বেশি সচেতন যেনো...

  • আইনের ফাঁকফোকরে প্রকৃত আসামিরা পার না পায়: হাইকোর্ট

  • এখন থেকে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট স্পষ্ট করে লেখার নির্দেশ

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনায় ৩টি তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল...

  • তূর্ণা এক্সপ্রেস সিগন্যাল অমান্য করায় দুর্ঘটনা...

  • চালক, সহকারী চালক ও গার্ডের দায়িত্বে গাফিলতি ছিল: রেলমন্ত্রী

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: ঢাকা দক্ষিণের বহিষ্কৃত ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর...

  • মমিনুল হক সাঈদের বিরুদ্ধের দুদকের মামলা

জমিদাতার মামলার কারণে ১৬ বছরেও শুরু হয়নি বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম

জমিদাতার মামলার কারণে ১৬ বছরেও শুরু হয়নি বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম

সরকারের কোটি টাকায় নির্মাণ করা হয় মেহেরপুরের রশিকপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়। কিন্তু জমিদাতার দেয়া মামলার কারণে ১৬ বছরেও শুরু হয়নি শিক্ষাকার্যক্রম। ফলে চার থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরের স্কুলে যেতে হচ্ছে এই গ্রামের শিক্ষার্থীদের।

মেহেরপুরের রশিকপুর গ্রামে মাধ্যমিক স্কুলের ভবন রয়েছে রয়েছে খেলার মাঠও। কিন্তু যাদের জন্য এই আয়োজন নেই সেই ছাত্র-ছাত্রী। এমনকী শিক্ষকও। শিক্ষাকার্যক্রম না থাকায় অযত্নে-অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার জিনিস। এরমধ্যে চুরি হয়ে গেছে অনেক সরঞ্জাম।

২০০৩ সালে সরকারি অনুদানে তিন বিঘা জমির উপর তৈরি করা হয় মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি। জমি নেয়া হয় আম্মাতন নেছা নামে একবৃদ্ধার কাছ থেকে। কথা ছিল, বিনিময়ে দেয়া হবে পাঁচ বিঘা কৃষি জমি অথবা ওই সময়ের বাজার মূল্য অনুযায়ী এক লাখ ষাট হাজার টাকা। কিন্তু তা না পাওয়ায় তৎকালীন স্কুল কমিটির বিরুদ্ধে মামলা করেন তিনি। ওই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়ায় ১৬ বছরেও চালু হয়নি বিদ্যালয়টি।

জমি দাতা আম্মাতন নেছা বলেন, স্কুলের জন্য জমি দেওয়ার পর নির্দিষ্ট পরিমান যে টাকা দেয়ার কথা ছিল সেই টাকা তিনি পান নি।

এ বিষয়ে স্কুল কমিটির সদস্য রহিম উদ্দীন বলেন, জমি দাতাকে বিনিময়ে হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দিতে চাইলেও নিচ্ছেন না আম্মাতন নেছা।  
মেহেরপর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শাহীন আক্তার জানান, বন্ধ হওয়া বিদ্যালয়টি চালু করার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এদিকে বিদ্যালয় চালুর ব্যাপারে মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত সমস্যা সাধানের ব্যবস্থা করা হবে।

এই বিদ্যালয় চালু না হওয়ায় রশিকপুরের শিক্ষার্থীদের যেতে হয় চার থেকে পাঁচ কি.মি. দূরের বিদ্যালয়ে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর