channel 24

সর্বশেষ

  • বিশ্বে মৃত্যু ছাড়ালো ৪৪ হাজার, আক্রান্ত প্রায় ৯ লাখ

  • চট্টগ্রামে বেসরকারি উদ্যোগে অস্থায়ী হাসপাতাল হচ্ছে

  • চট্টগ্রামে লকডাউনের ভুতুড়ে পরিবেশে সুযোগ নিচ্ছে ছিনতাইকারী

  • নিম্নআয়ের মানুষের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে বিভিন্ন সংগঠন-সংস্থা

  • নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের নৃশংসতা, কুপিয়ে হত্যা করলো ব্যবসায়ীকে

  • করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কাজ করছে সেনাবাহিনী: সেনাপ্রধান

  • শক্তিশালী ও সমন্বিত নীতির মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছে সরকার

  • করোনা নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বরিশালে ইমাম-শিক্ষকসহ ৬ জন আটক

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রিকেট ও লুডু খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৩০

  • নিজের ভালোটাও বুঝছেন না অনেকে, বিনা কারণে নামছেন সড়কে

  • বাগেরহাটে জমি নিয়ে বিরোধে গৃহবধূকে হত্যা

  • এবার ঢাকা ছাড়ছেন জাপানি নাগরিকরা

  • করোনায় আক্রান্ত দুধের বাজারও, বিক্রি হচ্ছে পানির দামে

  • ডিজিটাল প্লাটফর্মে চলছে বসুন্ধরা কিংসের অনুশীলন

  • ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ সরকারি-বেসরকারি অফিস, প্রজ্ঞাপন জারি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ছে নারী ও শিশু নির্যাতন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ছে নারী ও শিশু নির্যাতন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গত ৭ মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন দেড় শতাধিক। এমন তথ্য দিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ছে নারী ও শিশু নির্যাতন বিষয়ক মামলা। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্য বলছে, গত সাত মাসে ধর্ষণের অভিযোগে হাসপাতালে এসেছেন শিশু, কিশোরী ও প্রতিবন্ধীসহ ১৬৭ জন। কিন্তু মেডিকেল পরীক্ষায় মাত্র পাঁচ ভাগের শরীতে ধর্ষণের আলামত মিলেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন মো: শাহ আলম বলেন, সময় মতো হাসপাতালে না আসায় অনেক ক্ষেত্রে ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায় না। এতে করে ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছে প্রকৃত অপরাধীরা। এছাড়া প্রয়োজনীয় সাক্ষীর অভাবে এসব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি না হওয়ায় এ ধরনের অপরাধ বাড়ছে বলেও মনে করেন তিনি।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, মামলা করেও প্রতিকার পাচ্ছেন না তারা। উল্টো নানা সময়ে তাদেরকে হুমকি ধমকি দিচ্ছে অভিযুক্তরা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার পাবলিক প্রসিকিউটর বলছেন, অনেক সময় প্রয়োজনীয় সাক্ষীর অভাবে এসব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয় না। ফলে জেলায় বাড়ছে নারীর প্রতি সহিংসতা।

জেলায় নারী বা শিশু নির্যাতন বাড়ার কথা স্বীকার করে পুলিশ সুপার মো: আনিসুর রহমান বলেন, এসব ঘটনায় প্রশাসন সজাগ রয়েছে। অভিযোগ পাওয়া মাত্রই গুরুত্বসহকারে অভিযুক্তকে চিন্হিত করার ক্ষেত্রে প্রশাসন সর্বদা সচেষ্ট বলে জানান ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার পুলিশ সুপার।  

তবে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের অনেক মামলাই হয় ব্যক্তিগত ও পারিবারিক বিরোধের জেরে। ফলে প্রকৃত ঘটনা তদন্ত করে দোষীদের আইনের আওতায় আনার দাবি অনেকের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর