channel 24

সর্বশেষ

  • আবরার হত্যার আসামি নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত সঠিক...

  • এ নিয়ে রিট গ্রহণযোগ্য নয়: হাইকোর্টকে অর্থ মন্ত্রণালয়

  • বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা: ২০ জনের জামিন; ৩ জন কারাগারে

  • রংপুরে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

  • সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবাইকে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী...

  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন..

  • ঢাকা-কুড়িগ্রাম আন্তনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন

  • আবরার হত্যা: চার্জশিট হওয়ার আগ পর্যন্ত একাডেমিক অসহযোগ থাকবে...

  • চার্জশিটের পর স্থায়ী বহিষ্কার সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত: আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা...

  • তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর জড়িতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত: বুয়েট ভিসি

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক...

  • ওয়াহিদুলের বিচার শুরু; সাক্ষ্যগ্রহণ ২৪ নভেম্বর

  • দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায়...

  • ২০ জনের জামিন মঞ্জুর; ৩ জনকে কারাগারে প্রেরণ

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের...

  • প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওবায়দুলসহ ৯ জনকে দুদকে তলব

  • রংপুরের পীরগঞ্জে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ...

  • এলাকাবাসীর বিক্ষোভ; পুলিশ দাবি আত্মহত্যা

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণে আড়াই কোটি টাকা খরচে ধোঁয়াশা

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণে আড়াই কোটি টাকা খরচে ধোঁয়াশা

নতুন বিতর্ক দেখা দিয়েছে, গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। ধোঁয়াশা তৈরী হয়েছে, জাতির জনকের ম্যুরাল নির্মাণে খরচ নিয়ে। প্রতিষ্ঠানটির উপ-পরিচালকের তথ্য বলছে, ২০১৮ সালের ম্যুরাল বাবদ খরচ করা হয়েছে আড়াই কোটি টাকা। কিন্তু হিসাব বিভাগের দাবি, এই খাতে কোনো অর্থই খরচ হয়নি।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থানে তারই নামে প্রতিষ্ঠিত গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

২০১৪ সালে ২৪০ বর্গমিটার জায়গার উপর আড়াই কেআটি টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধুর মূর‍্যাল নির্মানের প্রকল্প হাতে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যদিও এখন পর্যন্ত এর কাজ শুরু হয়নি। কিন্তু গত পাঁচ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যালেন্ডার, ডায়েরি ও স্মারণিকায় মূর‍্যালটি নির্মাণাধীন দেখানো হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক তুহিন মাহমুদের সরবরাহকৃত তথ্যে, মুরাল জন্য এরইমধ্যে আড়াই কোটি টাকা খরচ দেখানো হয়েছে। কিন্তু ক্যামেরার সামনে বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন। তথ্য অধিকার আইন অনুযায়ী তার কাছে সঠিক তথ্য থাকলেও তিনি তা দেননি। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিভাগ বলছে, মূর‍্যাল খাতে কোন টাকা ছাড় করা হয়নি।

প্রকল্প পরিচালক ও প্রক্টর মো. আশিকুজ্জামান ভূইয়ার সরল স্বীকারক্তি, তিনি গত মাসে দায়িত্ব দিয়েছেন। তাই বিষয়টি জানেন না। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে বড় বাজেট নিয়ে মূর‍্যাল কমপ্লেক্স নির্মানের কথা তিনি জানান।

বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল কমপ্লেক্স নির্মান নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন নয় ছয়ের ঘটনায় ক্ষুব্ধ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। দ্রুত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তাদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর