channel 24

সর্বশেষ

  • রান্না খারাপ হওয়ায় স্ত্রীকে গাছের সাথে বেধে নির্যাতন

  • ডলফিনসহ মৎস্যসম্পদ রক্ষায় সরকারের পদক্ষেপ জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট

  • যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও ইতালিসহ সাত দেশের সঙ্গে বিমান চলাচল শুরু করছে চীন

  • চট্টগ্রামে সিটি কর্পোরেশনের এক কাউন্সিলরসহ ২'শ ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত

  • যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানি এক লাখ দুই হাজার ১০৭

  • যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসা নিরাপত্তা সরঞ্জাম তৈরির ফ্যাক্টরি নির্মাণে বেক্সিমকো গ্রুপের অর্থায়ন

  • করোনায় দেশে একদিনে শনাক্তের রেকর্ড, ১৫ জনের মৃত্যু

  • ভারতের পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলের ৭ রাজ্যে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে পঙ্গপাল

  • করোনা পাল্টে দিয়েছে কাতার উপকূলের জনজীবন

  • করোনা মহামারিতেও থেমে নেই রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্পের কাজ

  • চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো করোনা আক্রান্ত একজনকে প্লাজমা থেরাপি

  • কুড়িগ্রামে নৌকা ডুবি, নিখোঁজ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

  • ইউনাইটেড হাসপাতালের অধিকাংশ অগ্নিনির্বাপন যন্ত্রই মেয়াদোত্তীর্ণ

  • করোনার চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহার বন্ধের সিদ্ধান্ত ইইউর

  • লাতিন আমেরিকার ১ কোটি ৪০ লাখ মানুষ খাদ্য সংকটে পড়তে পারে: জাতিসংঘ

বগুড়া মেডিকেলের সংযোগ সড়ক নির্মাণে গাফিলতি, প্রকল্প ব্যয় বাড়লেও নির্মাণ হয়নি সড়ক

বগুড়া মেডিকেলের সংযোগ সড়ক নির্মাণে গাফিলতি, প্রকল্প ব্যয় বাড়লেও নির্মাণ হয়নি সড়ক

১৫ বছর ধরে নির্মাণ কাজ ঝুলে আছে বগুড়া শহর থেকে মেডিকেলে যাওয়া-আসার সংযোগ সড়ক । বারবার প্রকল্প পরিচালক পরিবর্তন আর বাড়ানো হয়েছে প্রকল্প ব্যয়। তবুও শেষ হয়নি সংযোগ সড়ক নির্মাণ। ফলে ৮ কিলোমিটার রাস্তা ঘুরে আরও সংকটাপন্ন হচ্ছে মুমূর্ষু রোগীদের জীবন। বর্তমান প্রকল্প পরিচালকের দাবি, জমি অধিগ্রহনসহ বেশকিছু জটিলতায় কাজ শুরু করা যাচ্ছে না।

২০০৪ সালে বগুড়ার প্রথম বাইপাস সড়কের সিলিমপুর এলাকায় নির্মাণ করা হয় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। এ হাসপাতালে জেলা ও জেলার বাইরে থেকে প্রতিদিন সেবা নিতে আসেন কয়েক হাজার মানুষ। অথচ শহর থেকে সরাসরি যোগাযোগের কোনো রাস্তা না থাকায় আট কিলোমিটার ঘুরে হাসপাতালে আসেন সেবাপ্রত্যাশীরা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় মুমূর্ষ রোগী ও স্বজনদের।

এ দুর্ভোগ কমাতে হাসপাতাল নির্মাণের বছরই ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে চার কিলোমিটার সংযোগ সড়ক নির্মাণ প্রকল্প নেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। ২০০৭ সালে মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৫ সালে এসে মাত্র পৌনে এক কিলোমিটার কাজ শেষে সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় প্রকল্পটির।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ফের প্রকল্প হাতে নেয় সড়ক বিভাগ। তবে চলতি বছর জুনে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও শুরুই হয়নি কাজ।

২৫তম প্রকল্প পরিচালকের দাবি, জমি অধিগ্রহণসহ বেশকিছু জটিলতায় কাজ শুরু করা যাচ্ছে না। রাস্তা দূরত্ব ও প্রশস্ততা কমে গেলেও নির্মাণ ব্যয় কয়েকগুণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৭৪ কোটি টাকায়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর