channel 24

সর্বশেষ

  • যুবলীগ নেতা খালেদ ভূঁইয়া দল থেকে বহিষ্কার

  • যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ আটক, ২শ' কোটি টাকার এফডিআর, নগদ টাকা, অস্ত্র উদ্ধার

  • অপকর্মে জড়িত নেতারা নজরদারিতে: কাদের

  • দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে, আর এতে মদদ দিচ্ছে সরকার: ফখরুল

  • ঢাবি শিক্ষার্থীরা পরবর্তীতে কোন প্রক্রিয়ায় ভর্তি হবেন, সে সিদ্ধান্ত অনুষদের: উপাচার্য

  • ঠাকুরগাঁও সীমান্তে বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

  • রাজশাহীর বড়াল নদী থেকে ৪ জনের গলিত মরদেহ উদ্ধার

  • ত্রিদেশীয় সিরিজে আজ মুখোমুখি আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে

  • যুবলীগ নেতা খালেদের মামলা তদন্ত করবে ডিবি উত্তর

সিলেটে মেয়েকে ধর্ষণ করলো বাবা, গ্রেপ্তারের পর স্বীকারোক্তি

সিলেটে মেয়েকে ধর্ষণ করলো বাবা, গ্রেপ্তারের পর স্বীকারোক্তি

সিলেটের ওসমানীনগরে বাবার হাতে মেয়ে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি জানাজানির পর বাবার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন শিশুটির চাচী। পুলিশ জানায়, একদিন পর গ্রেপ্তার হলে প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের কথা স্বীকারও করেছেন মাসুক মিয়া।

সিলেটের ওসমানী নগরের দয়ামারী এলাকায় এই বাড়িটিতেই চার মেয়েকে নিয়ে বসবাস করতেন মাসুক মিয়া। প্রায় ৬ বছর আগে ৪ কন্যা সন্তান রেখে স্ত্রী মারা গেলে সন্তানদের শেষ ভরসাস্থল ছিল তাদের বাবা।

বড় মেয়ে সহ অন্য দুই মেয়ে স্থানীয় মাদ্রাসায় থেকে লেখাপড়া করতো। ছুটি পেলেই চলে আসতো বাবার কাছে।

গত বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) মাদ্রাসা থেকে ফিরে এসে রাতে ঘুমানোর জন্য মেয়েটি তার বাবার সাথে থাকতে অসম্মতি জানায়। কারণ জানতে চাইলে, বর্ণনা শুনে হতবাক হয়ে যান তার চাচী। পরে পুলিশের কাছে ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়।

ভুক্তোভোগীর চাচী সুরেতুন বেগম বলেন, 'মেয়েটি শুক্রবার আমাকে জানায় যে তার বাবা তার সাথে...। পরে আমি থানায় মামলা করি।'

পুলিশের কাছে অভিযোগের পর পরই পালিয়ে যায় নির্যাতিতা মেয়েটির জন্মদাতা পিতা। যদিও ঐদিন রাতেই সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় পাষণ্ডরুপি পিতাকে।

এলাকাবাসী জানায়, সে যে কাজ করছে তা আমরা এই দুনিয়ায় কোনদিন শুনি নাই। এই লোকটার ফাঁসি চাই আমরা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নির্যাতনের বিষয়টি শিকার করেছে বলেও জানায় পুলিশ।

ওসমানী নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এস এম মামুন জানান, মেয়েটি মাদ্রাসায় পড়ত। মেয়েটি মাঝে মাঝে বাড়িতে আসলে তার বাবা তাকে কুপ্রস্তাব দিত। ওইরাতে মেয়েটির বাবা এনার্জির ওষুধ বলে ঘুমের ট্যাবলেই খাইয়েছে। পরে ঘুমিয়ে গেলে পরে তাকে ধর্ষণ করে। পরের দিন ঘুম ত্থেকে উঠে মেয়েটি রক্ত দেখতে পায়। তার বাবা কাউকে না বলার জন্য তাকে ভয় দেখায়। প্রকাশ করলে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নির্যাতনের বিষয়টি শিকার করেছে। পরে আমরা মামলা করেছি।

নির্যাতনের স্বীকার মেয়েটি সিলেট ওসমানী মেডিকেলে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিসে চিকিৎসাধীন।

নিউজটির ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর