channel 24

সর্বশেষ

  • বিষাদের ঈদ: নিম্নআয়ের অনেকের ঘরেই জ্বলেনি চুলা

  • একটু স্বস্তির খোঁজে শেষ বিকেলে রাজধানীর হাতিরঝিলে মানুষের ভিড়

  • করোনায় চিকিৎসক আর স্বাস্থ্যসেবীদের ঈদ কাটছে পরিবার ছাড়াই

  • হাঁটুপানিতে ঈদের নামাজ আদায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের

  • বৈশাখী টেলিভিশনের সিনিয়র সাংবাদিক অশোক চৌধুরী সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত

  • করোনা ভয় উপেক্ষা করেই সাবেক সংসদ সদস্য মকবুলের জানাজায় হাজারো মানুষ

  • খবর পেলেই করোনায় মৃতদের দাফন বা সৎকারে ছুটে যান কাউন্সিলর খোরশেদ

  • পবিত্র ঈদুল ফিতরে দুঃসময় কাটিয়ে সুদিন ফেরার প্রার্থনা

  • দেশে করোনায় আরও ২১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৯৭৫

  • কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী আজ

  • ঈদ আনন্দে বেদনার ছাপ; জামাতে মানা হয়নি শারীরিক দূরত্ব

  • ঈদেও কর্মব্যস্ত করোনার সম্মুখ যোদ্ধারা; স্বজনহারাদের হৃদয়ে বিষাদের সুর

  • ঈদের নামাজে সেজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

  • বিশ্বজুড়ে অব্যাহত করোনায় মৃত্যুর মিছিল

  • করোনা প্রতিরোধে সরকারের কোনো সমন্বয় নেই: ফখরুল

সরকারি হাসপাতালেই ডাক্তারের সিরিয়াল পেতে সময় লাগছে ৬ মাস!

সরকারি হাসপাতালেই ডাক্তারের সিরিয়াল পেতে সময় লাগছে ৬ মাস!

প্রাইভেট নয় সরকারি হাসপাতালেই চিকিৎসকের সিরিয়াল পেতে সময় লাগছে ৬ মাস। এমন চিত্র কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিকাশ কেন্দ্রে। এতে চরম ভোগান্তিতে সেবাপ্রার্থীরা। চিকিৎসকরা বলছেন, কুমিল্লাসহ আশপাশের আরও ৫টি জেলার একমাত্র শিশু বিকাশ কেন্দ্র হওয়ায় এখানে রোগীর চাপ বেশি। সেইসাথে রয়েছে জনবল সংকট।

বিশেষায়িত চিকিৎসার জন্য ২০০৯ সালে কুমিল্লা মেডিকেলে চালু করা হয় এই শিশু বিকাশ কেন্দ্র। কিন্তু শিশুদের স্পিচ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লিনিক, সাইকোলজিক্যাল অ্যাসেসমেন্ট ও অটিস্টিক শিশুদের সেবা পেতে অপেক্ষা করতে হয় দীর্ঘ সময়। একমাস পরপর ফলোআপের কথা থাকলেও অনেককে ৬ মাসও অপেক্ষা করতে হয়।

চিকিৎসক ও সাইকোলজিস্টসহ এখানে কাজ করছেন মাত্র ৫ জন। ফলোআপ ক্লিনিকের ক্ষেত্রে একজন শিশু দেখতে ৭৫ থেকে ৮০ মিনিট সময় ব্যয় হয়। ফলে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের জট তৈরী হয়।

শুধু চিকিৎসক নয় অন্যান্য বিভাগেও রয়েছে জনবল সংকট। কুমিল্লা মেডিকেলের পরিচালক বলছেন, রোগীদের ভোগান্তি এবং অন্যান্য সমস্যার কথা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

কুমিল্লা শিশু বিকাশ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, গত জুলাই মাসে ৮২৩ জন রোগীকে সেবা দেয়া হয়েছে। কিন্তু যাদের ফলোআপ চিকিৎসা প্রয়োজন, চলতি বছরের বাকি ৪ মাসেও তাদের সুযোগ নেই।

নিউজটি দেখুন ভিডিও প্রতিবেদনে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর