channel 24

সর্বশেষ

  • ৮ বছর পেরিয়ে নয়ে পা রাখলো চ্যানেল টোয়েন্টিফোর

  • করোনায় মারা গেলেন আ.লীগের সাবেক এমপি হাজী মকবুল

  • অনির্দিষ্টকাল মানুষের আয়ের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয় জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী

  • ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে শেখ হাসিনার ভাষণ

  • মহামারিতে কাল বিষাদের ঈদ

  • শারীরিক দূরত্ব মেনে বায়তুল মোকাররমে ৫টি জামাত

  • হালদা নদীতে আরও একটি ডলফিন মারা পড়লো

  • ৮ জুন থেকে লা লিগা ফিরতে বাধা নেই

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদযাপনের আহ্বান কাদেরের

  • পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার তৌফিক উমর করোনায় আক্রান্ত

  • জয়পুরহাটে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে 'করোনা যুদ্ধে আমরা' সংগঠন

  • করোনায় ভেঙে পড়েছে ই-কমার্স খাত

  • ভিন্ন প্রেক্ষাপটে উদযাপিত হবে এবারের ঈদ

  • অনুমোদন না পেলেও মঙ্গলবার থেকে করোনা পরীক্ষা শুরু করবে গণস্বাস্থ্য

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিপাকে কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকরা

চাঁদপুরে মেঘনা নদীর ভাঙনে আশ্রয়ণ প্রকল্প এখন আশ্রয়হীন

চাঁদপুরে মেঘনা নদীর ভাঙনে আশ্রয়ণ প্রকল্প এখন আশ্রয়হীন

নদী ভাঙনে গৃহহীন মানুষের আশ্রয়ের জন্য গড়ে তোলা হয়েছিল যে আশ্রয়ণ প্রকল্প, সেটিই এখন আশ্রয়হীন। প্রমত্তা মেঘনার ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে চাঁদপুরের লক্ষ্মীপুর মডেল আশ্রয়ণ প্রকল্পের ভবন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানান, ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা চলছে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পে এসেও আশ্রয় মিলছে না নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর। প্রমত্তা মেঘনা নদীর ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে চাঁদপুরের লক্ষীপুর মডেল ইউনিয়নের আশ্রয়ণ প্রকল্পের বসতঘর।

ইতোমধ্যে আশ্রায়ন প্রকল্পের ২৫টি ব্যারাকের ৬০টি পরিবার থাকার বসতঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। অন্যসব ব্যারাকে বসবাসরত পরিবারগুলোরও দিন কাটছে অনিশ্চয়তায়।

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে নদীভাংতি ও অসহায় পরিবারের জন্য আশ্রায়ণ প্রকল্পের নামে বসতঘর দেয়ার উদ্যোগ নেয়।

ওই সময় চাঁদপুরের লক্ষীপুর মডেল ইউনিয়নের হরিনা মৌজায় মেঘনা নদীর চরাঞ্চলে ৭টি আশ্রায়ন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়। এসব আশ্রায়ন প্রকল্পের ১৩৫টি ব্যারাকে ৬৭৫টি পরিবারকে থাকার ব্যবস্থা করা হয়। প্রমত্তা মেঘনা নদীর ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে আশ্রায়ন প্রকল্পের বসতঘর।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে : হরিনা আশ্রয়ণ প্রকল্প, হরিনা সম্প্রসারণ আশ্রয়ণ প্রকল্প, পদ্মা আশ্রয়ণ প্রকল্প, পদ্মা সম্প্রসারণ আশ্রয়ণ প্রকল্প, ইলশেপাড় আশ্রয়ণ প্রকল্প, গোক্ষুরদী আশ্রয়ণ প্রকল্প ও গোক্ষুরদী সম্প্রসারণ আশ্রয়ণ প্রকল্প।

ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার। ভাঙন অব্যাহত থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি কেউ যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে ব্যাপারে নজর রাখা হচ্ছে বলে জানালেন এ গ্রাম পুলিশ সদস্য।

ভাঙন এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে আশ্রয়ন প্রকল্পের অন্য ঘরে আশ্রয় দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেন এ জনপ্রতিনিধি।

নিউজটির ভিডিও-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর