channel 24

সর্বশেষ

  • শুদ্ধি অভিযানে টার্গেটকৃতদের আইনের আওতায় আনা হবে: কাদের

  • সড়ক দুর্ঘটনা: ঝিনাইদহে ২, হবিগঞ্জে ২ ও মৌলভীবাজারে নারী নিহত

  • চট্টগ্রামের নিমতলীতে একটি বাসা থেকে বাবা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

  • আর্থিক সংকট: শনি ও রোববার বন্ধ থাকবে জাতিসংঘ সদর দপ্তর

ফণীর প্রভাবে গৃহহীন মানুষ; ত্রাণ নয়, পুনর্বাসনের দাবি

ফণীর প্রভাবে গৃহহীন মানুষ; ত্রাণ নয়, পুনর্বাসনের দাবি

নোয়াখালীতে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে গৃহহীন অনেক মানুষ এখনও খোলা আকাশের নিচে। দিনে কোনোমতে থাকলেও রাত কাটে ঝড় বৃষ্টি আতঙ্কে। ভুক্তভোগীরা বলছেন, এই কদিনে সরকারি বেসরকারিভাবে যে সহায়তা দেয়া হয়েছে, তা ফুরিয়ে গেছে। তবে ত্রাণ নয় তাদের দাবি, পুনর্বাসন। স্থানীয় প্রশাসন বলছে, রোজার ঈদের আগেই এই মানুষগুলোর পুনর্বাসনে সরকার আন্তরিক।

সরকারি হিসেবে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে নোয়াখালী সদর, সুবর্ণচর ও কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ৬৮৯টি বাড়ি সম্পূর্ণ এবং ৩৩৩টি বাড়ি আংশিক বিধ্বস্ত হয়। এরমধ্যে সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের পূর্ব শূল্লকিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলার ওয়াপদা ইউনিয়নের চর আমিনুল হক গ্রামে দুই শতাধিক ঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়। ভেঙে গেছে প্রচুর গাছপালা।

আকস্মিক ঝড়ে শুধু বাড়িঘর নয়, উড়িয়ে নিয়ে গেছে খাদ্যশস্য, মুরগি ও গরুর খামারও। সব হারিয়ে দিশেহারা অনেক পরিবার। চাহিদার তুলনায় তারা সরকারি বেসরকারি যে সহায়তা পেয়েছে তাও ফুরিয়ে গেছে। এখনও খোলা আকাশের নিচে সামিয়ানা টানিয়ে থাকছে পরিবারগুলো। ৎ

নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক তন্ময় দাসের দাবি, শুরু থেকেই সরকারিভাবে পর্যাপ্ত ত্রাণ দেয়া হয়েছে। এরইমধ্যে পুনর্বাসনেরও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। রোজার ঈদের আগেই ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের আশ্বাস তার।

ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে দেশের বিভিন্ন খাতে ৫শ ৩৬ কোটি ৬১লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে বাড়িঘর, বাঁধ, রাস্তা, ফসল, মাছ, বন ও পরিবেশগত ক্ষয়ক্ষতি।

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর