channel 24

সর্বশেষ

  • খবরের ফেরিওয়ালা ঝুমু রানী দাস

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: জাপার সাবেক এমপিসহ ৮ জনের বিচার শুরু

  • চট্টগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানী করতে প্রয়োজন বাস্তবসম্মত পরিকল্পনা

  • বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির শ্রদ্ধা

  • বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম কমতির দিকে

  • নিজ সংসদীয় আসন বারানসি সফরে গেছেন মোদি

  • পোশাক শ্রমিকদের ৩০ মে বোনাস, ২ জুনের মধ্যে বেতন দেওয়া হবে

  • ডিএসইতে লেনদেন বাড়লেও কমেছে সিএসইতে

  • চট্টগ্রামে খাদ্যে রাসায়নিক সন্ত্রাস বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত

  • বাংলাদেশ ফেরত প্রবাসীদের পুনর্বাসনের দাবী

  • যুক্তরাষ্ট্রে টর্নেডোর আঘাতে ৬ জনের প্রাণহানি

  • কাজের মাধ্যমে জণগণের আস্থা অর্জনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ আইনের মেয়াদ আরও ৫ বছর বৃদ্ধি

  • ফটিকছড়িতে গৃহবধুকে হত্যার পর স্বজনদের হুমকীর অভিযোগ

  • প্রধানমন্ত্রীর জাপান সফরে বাণিজ্য ও কর্মসংস্থান বাড়ার আশা

একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের দাবিদার তিনজন!

একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের দাবিদার তিনজন!

বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ থাকে একটিই। কিন্তু জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে হিন্দা উচ্চ বিদ্যালয়ে সেই পদের দাবিদার তিনজন। এই দ্বন্দ্বে ৬ মাস ধরে বেতন পাচ্ছেন না, স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা। ব্যাহত হচ্ছে পাঠদানও। বিষয়টি গড়িয়েছে আদালত পর্যন্ত।

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার হিন্দা উচ্চ বিদ্যালয়। এ স্কুলে প্রধান শিক্ষক পদের দাবিদার ৩ জন।

শুরুটা ২০১৮ সালে। ম্যানেজিং কমিটির একটি অংশের সাথে দ্বন্দ্ব শুরু হয় প্রধান শিক্ষক নজাবর রহমানের। এর জেরে তাকে সাময়িক বহিস্কার করে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেয়া হয়, সহকারি শিক্ষিকা সুলতানা রাজিয়াকে। তিনি ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল বাছেদের স্ত্রী।

এ ঘটনায় দুই শিক্ষকই মামলা করেন। সেই সাথে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়। এতে বিপাকে পড়েছে শিক্ষার্থীরা।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গণিতের শিক্ষক মুশফিকুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেন শিক্ষা কর্মকর্তা। এরপর থেকে তিনজনই লড়ছেন এই পদের জন্য।  

এ অবস্থায় ৬ মাস ধরে বন্ধ বেতন ভাতা। এতে চরম বিপাকে শিক্ষক-কর্মচারীরা।

শিগগিরই স্কুলটিতে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনার আশ্বাস দিয়েছেন মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ।

প্রায় সাড়ে ৩'শ শিক্ষার্থীর কথা বিবেচনা করে দ্রুত সংকটের সমাধান চান অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর