channel 24

সর্বশেষ

  • জি এম কাদের এখন ভারপ্রাপ্ত নন, পূর্ণাঙ্গ চেয়ারম্যান: জাতীয় পার্টি...

  • দলে বিভেদ না থাকার দাবি নতুন চেয়ারম্যানের

  • ধর্ষণ মামলা ১৮০ দিনের মধ্যে শেষ করতে ব্যবস্থা গ্রহণে...

  • নিম্ন আদালতের বিচারকদের হাইকোর্টের নির্দেশ

  • রিফাত হত্যা: তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজী গ্রেপ্তার

  • উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি...

  • বাঁধ ভেঙে প্লাবিত গাইবান্ধা, কুড়িগ্রামের শতাধিক গ্রাম...

  • যমুনা, ধলেশ্বরী এবং ঝিনাই নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে...

  • তলিয়ে গেছে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর ও বগুড়ার নিম্নাঞ্চল...

  • জামালপুর-বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ও দেওয়ানগঞ্জ রুটে রেল যোগাযোগ বন্ধ

  • বৈরী আবহাওয়া ও অতিরিক্ত স্রোতের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে...

  • ফেরি চলাচল ব্যাহত; আটকা পড়েছে এক হাজারের বেশি যানবাহন

  • রাজধানীতে তিন রুটে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত...

  • চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন; শুনানি আজ

  • বাস মালিকদের দ্বন্দ্ব: সিরাজগঞ্জে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ

বোরকা এনে দেওয়া শম্পা গ্রেফতার

বোরকা এনে দেওয়া শম্পা গ্রেফতার

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) জানিয়েছে, ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদ্রাসাছাত্রী ও আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় উম্মে সুলতানা পপি ওরফে শম্পাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

পিবিআই জানায়, কয়েক দিন আগেই তাকে আটক করা হলেও গ্রেফতার দেখানোর বিষয়টি আজ সোমবার (১৫ এপ্রিল) নিশ্চিত করেছেন পিবিআই কর্মকর্তারা।

পিবিআই কর্মকর্তারা জানান, এই পপি ওরফে শম্পাই আগুন লাগানোর বোরকা এনে দিয়েছিল।

অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানান, শম্পাকে আগেই গ্রেফতার করা হয়েছে। সে রিমান্ডের আদেশপ্রাপ্ত। তাকে এখনও রিমান্ডে আনা হয়নি।

ঘটনার পরপরই এজাহারভুক্ত সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া সন্দেহভাজন যে ছয়জনকে আটক করা হয় তার মধ্যে উম্মে সুলতানা পপি ছিল।

নুসরাত মৃত্যুর আগে দেয়া জবানবন্দিতে (ডাইং ডিক্লারেশন) শম্পার নাম বলেছিলেন। যে চারজন বোরকা পরা নারী বা পুরুষ তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়, শম্পা তাদের একজন বলে জানান নুসরাত।

নুসরাত হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে এজাহারভুক্ত ছয় আসামি ছাড়াও সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত (৬ এপ্রিল) সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে সকাল ৯টার দিকে নুসরাত আলিম পর্যায়ের আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা দিতে যায়। পরে তাকে কৌশলে পাশের ভবনের ছাদে ডেকে নেওয়া হয়। সেখানে ৪ থেকে ৫ জন বোরকা পরিহিত ব্যক্তি ওই ছাত্রীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার শরীরের ৮৫ শতাংশ পুড়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার স্বজনরা প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে চিকিৎসকরা তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ এপ্রিল নুসরাত মারা যায়। এ ঘটনায় ৮ জনকে এজাহারভুক্ত ও অজ্ঞাত আসামি দেখিয়ে মামলা করে পরিবার।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর