channel 24

সর্বশেষ

  • জাতীয় পরিচয়পত্রের নিরাপত্তায় 'পরিচয়' অ্যাপের উদ্বোধন করেছেন জয়

  • রিফাত হত্যা মামলায় স্ত্রী মিন্নি ৫ দিনের রিমান্ডে

  • বিশ্বকাপ ফুটবল: এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে 'ই' গ্রুপে বাংলাদেশ...

  • প্রতিপক্ষ কাতার, ভারত, ওমান, আফগানিস্তান

  • রাষ্ট্রদ্রোহের ১ ও নাশকতার ১০ মামলায় খালেদা জিয়াকে...

  • ২ সেপ্টেম্বর হাজির হওয়ার দিন ধার্য করেছেন আদালত

  • এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ; পাসের হার ৭৩.৯৩ শতাংশ...

  • ৮ বোর্ডে ৭১.৮৫ শতাংশ; GPA-5 পেয়েছেন ৪৭ হাজার ৫৮৬...

  • মাদ্রাসা বোর্ডে ৮৮.৫৬ শতাংশ; GPA-5 পেয়েছেন ২ হাজার ৫৪৩...

  • কারিগরি বোর্ডে ৮২.৬২ শতাংশ; GPA-5 পেয়েছেন ৩ হাজার ২৩৬...

  • পাসের হার যথেষ্ট ভালো ও গ্রহণযোগ্য: প্রধানমন্ত্রী...

  • সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ ২০১৯ পুরস্কার পেলেন ১২ শিক্ষার্থী

  • ডেঙ্গু মোকাবিলায় ২৫ থেকে ৩১ জুলাই সপ্তাহব্যাপী মশা নিধন ও...

  • পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

  • নুসরাত হত্যা: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায়...

  • সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের অভিযোগ গঠনের শুনানি দুপুর ২টায়

  • রিফাত হত্যা: স্ত্রী মিন্নিকে আদালতে নেয়া হবে আজ

  • রোহিঙ্গা নিপীড়ন: তদন্তে ঢাকায় আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রতিনিধি দল

  • এনআরসির পর এবার আসামে ১ লাখ ১৭ হাজার বাসিন্দাকে...

  • বিদেশি চিহ্নিত করেছে বিজেপি সরকার

ছাত্রীর যৌন হয়রানিতে অভিযুক্ত শিক্ষকের নিয়োগের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন

ছাত্রীর যৌন হয়রানিতে অভিযুক্ত শিক্ষকের নিয়োগের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন

দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনার অভিযুক্ত শিক্ষক আক্কাস আলীর বিচার দাবিতে টানা ৫ দিন আন্দোলন করেছে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

এবার অভিযুক্ত শিক্ষকের নিয়োগের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। নীতিমালা অনুযায়ী প্রভাষক পদে র্নন্যতম যোগ্যতা মাস্টার্স পাস থাকার নিয়ম থাকলেও স্নাতক পাসেই চাকরি দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যদিও এ বিষয়ে সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেনি প্রশাসন।

শিক্ষক নিয়োগ বিধিতে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রি থাকার কথা থাকলেও আক্কাস আলী নিয়োগ পেয়েছেন শুধু অনার্স পাসেই। এছাড়া মাত্র তিনমাসের মাথায় পেয়েছেন সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক। 

এ ব্যাপারে প্রক্টরের বক্তব্য জানতে চাইলে, তিনি দায় চাপান উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারের উপর। আর রেজিস্ট্রার জানান, নিয়োগ বিধি মানা হয়েছে কিনা তা নিয়োগ বোর্ড জানে।  

যৌন হয়রানি, নিয়োগ অনিয়ম, আর্থিক দুর্নীতিসহ সব অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ ব্যাপারে বক্তব্য নেয়ার পর সাংবাদিককে টাকা দেয়ার চেষ্টা করেন অভিযুক্ত শিক্ষক আক্কাস আলী।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর