channel 24

সর্বশেষ

  • সরকারের পতন ঘটাতে দুর্নীতিবাজদের ঐক্য হয়েছে...

  • ইন্টারনেটে অপপ্রচার রোধ ও শিশুদের সুরক্ষায় ডিজিটাল আইন...

  • যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

  • জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া শেষ পর্যন্ত টিকবে না: ওবায়দুল কাদের

  • মালদ্বীপের নির্বাচনে জয়ের দাবি বিরোধী প্রার্থী ইব্রাহিম সলিহর

  • এশিয়া কাপ: আফগানিস্তানকে ৩ রানে হারিয়ে...

  • ফাইনালের সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখলো বাংলাদেশ...

  • স্কোর: বাংলাদেশ ২৪৯/৭, আফগানিস্তান ২৪৬/৭...

  • মোস্তাফিজের ওভার ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট: মাহমুদুল্লাহ

সুন্দরবনে বাড়ানো হচ্ছে বিরল প্রজাতির ডলফিনের অভয়ারণ্য

সুন্দরবনে বাড়ানো হচ্ছে বিরল প্রজাতির ডলফিনের অভয়ারণ্য

সুন্দরবনের আরও ১৯০ বর্গকিলোমিটার এলাকার নদীতে বাড়ানো হচ্ছে বিরল প্রজাতির ডলফিনের অভয়ারণ্য। সম্প্রতি এক জরিপে শুশুক ও ইরাবতি ডলফিনের আধিক্য পাওয়া গেছে ওই এলাকাগুলোর নদীতে। এছাড়া ডলফিনের ৫টি হুমকি মোকাবেলায় বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু করেছে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ।

২০১২ সালে সুন্দরবনের ঢাংমারী, চাঁদপাই ও দুধমুখী এলাকাকে ডলফিনের অভয়ারণ্য ঘোষণা করে বন মন্ত্রণালয়। এ তিনটি এলাকার ১০ দশমিক ৭ বর্গ কিলোমিটার নদীতে ইরাবতি ও শুশুক ডলফিনের বিচরণ।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ড. মনিরুল এইচ খান বলেন, গেলো বছরের মাঝামাঝি শুরু হওয়া একটি জরিপে ডলফিনের অস্তিত্ব মিলেছে সুন্দরবনের আরও বেশ কয়েকটি নদীতেও। পরে এসব এলাকাকেও অভয়ারণ্য ঘোষণা উদ্যোগ নেয়া হয়।

খুলনা বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন কর্মকর্তা মো. মদিনুল আহসান জানান, জেলেদের জালে আটকা পড়ে কিংবা ভারী নৌযানের প্রপেলার বা পাখার আঘাতে প্রায় মারা যাচ্ছে ডলফিন। এছাড়া পাচার, অতিরিক্ত মাছ আহরণ, পর্যটকের আনাগোনা, বিষ দিয়ে মাছ ধরা, পানি দূষণ ও জলবায়ু পরিবর্তনেও হুমকিতে ডলফিন।  

২০০৬ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সুন্দরবনের নদীগুলোতে ইরাবতি ডলফিন ছিল ৪৫১টি আর শুশুক ছিল ২২৫টি। নতুন জরিপ শেষ হলে শিগরিই এখনকার অবস্থাও জানা যাবে বলে জানান খুলনা সার্কেল বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী।  

বেসরকারি অর্থায়েন বন বিভাগের এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ১৯ কোটি টাকা, যাতে সাময়ীক কর্মসংস্থান হয়েছে এক হাজার জেলের। প্রকল্পটি শেষ হবে ২০১৯ সালে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর