channel 24

সর্বশেষ

  • চট্টগ্রামে চলছে চাকরি মেলা

  • নরসিংদীর বাঁশগাড়িতে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  • নির্বাচনি ইশতেহারে স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়ার আহবান

  • রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারের ১০৭ কোটি ডলার লোকসান

  • মূলার বাম্পার ফলনের পরও লোকসানে লালমনিরহাটের চাষীরা

  • ইতিহাসের সাক্ষী হবার অপেক্ষায় নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম

  • শীতকালীন সবজিতে ছেয়ে গেছে কাঁচাবাজার

  • নিপুণ রায়সহ ৭ জন পাঁচ দিনের রিমান্ডে

  • মিডিয়া কাপ ক্রিকেটে বাংলা ট্রিবিউন চ্যাম্পিয়ন

  • বকুলতলায় নাচে-গানে উদযাপিত হচ্ছে নবান্ন উৎসব

  • বর্ণময় জীবনের অধিকারী ছিলেন শিল্পী বারী সিদ্দিকী

  • সংখ্যালঘু নির্যাতনকারীদের মনোনয়ন না দেয়ার দাবি হিন্দু জোটের

  • সানরাইজার্সের হয়েই আইপিএল খেলবেন সাকিব

  • বরিশালের সঙ্গে ঝালকাঠিসহ ছয়টি রুটে বাস চলাচল বন্ধ

  • সৃষ্টির মাঝেও কাটছে না শূন্যতার রেশ

স্বেচ্ছায় ২০ বছর ধরে ট্রাফিক কন্ট্রোল করেন আজাহার

স্বেচ্ছায় ২০ বছর ধরে ট্রাফিক কন্ট্রোল করেন আজাহার

২০ বছর ধরে স্বেচ্ছায় ট্রাফিক কন্ট্রোল করেন আজাহার আলী মন্ডল। আজাহার আলীর বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার ভালাইন ইউনিয়নের লক্ষ্মীরামপুর গ্রামে।

আজহার আলী জানায়, এক ছেলে ও এক মেয়ে আজাহার আলীর সংসার। ছেলে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। জীবিকার জন্য আজহার আলী ১৬ বছর ঢাকায় রিকসা চালিয়েছেন। পরে তিনি গ্রামের বাড়িতে চলে যান।

প্রথমে তিনি মহাদেবপুর উপজেলায় ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করতেন। পরে তিনি চলে যান মান্দা উপজেলার ফেরিঘাট এলাকায়। আজ পর্যন্ত তিনি সেখানে আছে।

তার এই স্বেচ্ছায় ট্রাফিক কন্ট্রোলের পিছনে আছে একটি সড়ক দুর্ঘটনা। একদিন জেলার মহাদেবপুর উপজেলায় প্রবেশের মুখে একটি সড়ক দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে মারা যান। যা তার বিবেককে খুব নাড়া দেয়। এরপর থেকে স্বেচ্ছায় প্রায় ২০ বছর ধরে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করে আসছেন আজহার আলী মন্ডল।

১৯৯৫ সালে আনসার বিডিপি থেকে প্রশিক্ষণ নেন আজহার আলী। সেই প্রশিক্ষণে ট্রাফিকের যে কলা কৌশল শিখেছেন তা দিয়ে তিনি ট্রাফিকের ভুমিকা পালন করে আসছেন।

স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকা পালন করলেও তিনি কিছু অর্থ সাহায্য পেয়ে থাকেন ইউএনও অফিস, থানা ও সার্কেল অফিস থেকে। আজহার আলী জানান, তিনি অ্যাকশিরা রোগে ভুগছেন। এখন ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করতে কিছুটা বেগ পেতে হয়।

নওগাঁর সহকারী পুলিশ সুপার জানান, মান্দা উপজেলার ফেরিঘাটটি জনগুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম জায়গা। আজাহার আলী স্বেচ্ছায় নিরলস শ্রম দিয়ে ট্রাফিকের যে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন সেটা নিঃসন্দেহ ভালো উদ্যোগ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর