channel 24

সর্বশেষ

  • করোনার চেয়ে বেশি মানুষ মারা যেতে পারে অনাহারে: অক্সফামের সতর্কতা

  • রংপুরে ৯৩ হাজার হতদরিদ্র পরিবার পায়নি প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার

  • করোনাকালে স্বাস্থ্যখাতের সবচেয়ে বড় দুর্নীতি রিজেন্ট কাণ্ড

  • বাংলাদেশসহ ১৩ দেশের ওপর ইতালির নতুন নিষেধাজ্ঞা

  • নেপালে বন্ধ ভারতের সব টেলিভিশন চ্যানেলের সম্প্রচার

  • চট্টগ্রামে হাসপাতাল বিমুখ রোগীরা

  • দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে বাবা-ছেলেসহ ৮ জনের মৃত্যু

  • কোয়ারেন্টিনে ইতালি ফেরত ১৪৭ বাংলাদেশি, রাখা হয়েছে হজ ক্যাম্পে

  • করোনায় মারা গেছেন সাহেদের বাবা

  • সাহারা খাতুন মারা গেছেন

  • পশ্চিমবঙ্গের ক্যান্টনমেন্টে কড়া লকডাউন শুরু

  • ভেঙে ফেলা হচ্ছে স্মৃতি বিজড়িত এফডিসির ৩ ও ৪ নম্বর ফ্লোর

  • ইংল্যান্ডের সাথে টেস্ট সিরিজ বাতিল করতে যাচ্ছে বিসিসিআই

  • বাতিল হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ড ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ

  • নামিদামি ফার্মেসিতে ভেজাল বিদেশি ওষুধ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার

চট্টগ্রামে সবচেয়ে দুর্ঘটনা প্রবন সড়ক চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক। প্রতিদিনই এই মহাসড়কের কোথাও না কোথাও ঘটছে দুর্ঘটনা। তাই দুর্ঘটনা প্রতিরোধে প্রথমবারের মতো হাইওয়ে পুলিশকে দেয়া হলো অত্যাধুনিক সব যন্ত্রপাতি। অ্যালকোহল ডিটেক্টর, আরএফআইডি, স্পিডগানের মতো প্রযুক্তি দিয়ে এখন থেকে পুলিশ মাদকাসক্ত চালক, কাগজপত্রহীন গাড়ি আর অতিরিক্ত গতি শনাক্ত করতে পারবে। এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন চালকরাও।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক। অসংখ্য বাঁক ছাড়াও চালকদের অসতর্কতা, মাদকাসক্তি, অদক্ষতা আর বেপরোয়া গতির কারণে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। হচ্ছে প্রাণহাণি।

তবে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে এই মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশে এবার যুক্ত হলো অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি। যার একটি অ্যালকোহল ডিটেক্টর। যেটির মাধ্যমে শনাক্ত করা যাবে কোন চালক মাদক গ্রহণের পর গাড়ি চালাচ্ছে কিনা।

চট্টগ্রামের পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির  ইনচার্জ বিমল চন্দ্র ভৌমিক বলেন, আধুনিক যন্ত্রপাতি আসার পর থেকে সড়কে চলাচলরত যানবাহনগুলো নিয়ম মেনেই চলছে। আর সহজেই চালকদের অপরাধ শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এমন আরেকটি প্রযুক্তি আরএফআইডি। এটির মাধ্যমে নম্বর দেখেই নিশ্চিত হওয়া যাবে গাড়ির কাগজপত্রের সত্যতা। এছাড়াও স্পিডগান দিয়ে নিরূপন করা যাবে গাড়ির গতি। নেয়া যাবে ব্যবস্থা।

এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন যানবাহন চালকরাও। তাদের আশা, এতে করে দুর্ঘটনা রোধের পাশাপাশি কমে আসবে হয়রানিও।

গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়কে পটিয়ার মনসারটেক ছাড়াও দুর্ঘটনা প্রতিরোধ এবং যানবাহনে শৃঙ্খলা আনার কাজটি নিয়মিত চলবে আরো ৮টি স্পটে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর