channel 24

সর্বশেষ

  • ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ৪১ কোটি ১৩ লাখ টাকার...

  • অনিয়মে হাইকোর্টের বিস্ময়, ৬ মাসের মধ্যে তদন্তে ব্যবস্থার নির্দেশ দুদককে

  • রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে মরদেহ উদ্ধার হওয়া...

  • মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা; ময়নাতদন্তের রিপোর্ট

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ২১ পরিবারের ১০৫ সদস্যের মতামত গ্রহণ আরআরআরসি'র

  • ঢাকা মহানগরের দখল হওয়া খাল ও দখলদারদের...

  • তালিকা চেয়ে ওয়াসা ও জেলা প্রশাসককে দুদকের চিঠি

  • চট্টগ্রামে জঙ্গি সংগঠন হামজা ব্রিগেডের ৩৩ সদস্যের বিচার শুরু...

  • বিএনপি নেত্রী শাকিলা ফারজানার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

  • রিফাত হত্যা: মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে না: হাইকোর্টের রুল...

  • মামলার সব নথি তলব; এসপির প্রেস ব্রিফিংয়ের লিখিত ব্যাখ্যার নির্দেশ

  • ডেঙ্গুতে শরীয়তপুরে গৃহবধূ ও ফরিদপুরে শ্রমিকের মৃত্যু

  • পর্যায়ক্রমে বৈদ্যুতিক লাইন মাটির নিচ দিয়ে নেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • কাশ্মীরে চালানো আগ্রাসনের কারণে ভারতীয় হিসেবে গর্ববোধ করি না...

  • গণতন্ত্র ছাড়া এ সমস্যার সমাধান নেই: নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন

  • আলোচিত বিষয়গুলোতে ঐকমত্যে পৌঁছেছি: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী...

  • পারস্পরিক সমঝোতায় অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন সমস্যা সমাধানের আশা জয়শঙ্করের...

  • বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমারের স্বার্থে রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরে যাওয়া দরকার

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন: তালিকাভুক্তদের জানানো শুরু করেছে ইউএনএইচসিআর

  • মশার নতুন ওষুধ কার্যকরী, হাইকোর্টে উত্তর সিটির প্রতিবেদন...

  • দক্ষিণে আজ থেকে ছিটানো হবে নতুন ওষুধ: হাইকোর্টকে আইনজীবী...

  • ডেঙ্গু রোধে উত্তরের পদক্ষেপে সন্তুষ্ট হাইকোর্ট, দক্ষিণের ভূমিকায় ক্ষোভ...

  • ডেঙ্গু রোধে কাদের গাফিলতি, তদন্ত হওয়া দরকার: হাইকোর্ট

  • ডেঙ্গুতে শরীয়তপুরে গৃহবধূ ও ফরিদপুরে শ্রমিকের মৃত্যু

  • আন্তর্জাতিক চক্রান্তে চামড়া শিল্পের মতো সম্ভাবনাময় খাতগুলো মুখ থুবড়ে পড়ছে: ফখরুল

  • নিরাপত্তা চাইতে ডাকসুর ভিপি নুর হাইকোর্টে

যানজটে নাকাল চট্টগ্রামের বিমানবন্দর সড়ক

যানজটে নাকাল চট্টগ্রামের বিমানবন্দর সড়ক

বৃষ্টি নেই, নেই জলাবদ্ধতা। তারপরও যানজটে স্থবির চট্টগ্রামের বারেক বিল্ডিং থেকে শাহ আমানত বিমান বন্দর সড়ক। মাত্র ১৫ কিলোমিটারের এই রাস্তা পেরোতে লাগছে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা। এতে দুর্ভোগের শেষ নেই যাত্রীদের। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে ট্রাফিক পুলিশও।

চট্টগ্রামের বারেক বিল্ডিং থেকে শাহ আমানত বিমান বন্দর সড়কের এক অংশে ঠাঁই দাড়িয়ে আছে যানবাহন। মিনিট দশেক পর ধীরে ধীরে কিছুটা এগুলেও কয়েক কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে সময় লাগছে তিন থেকে চারঘন্টা। এই চিত্র চট্টগ্রাম নগরীর অন্যতম ব্যস্ত রাস্তা বারেক বিল্ডিং থেকে শাহ আমানত বিমানবন্দর সড়ক পর্যন্ত।

দুটি প্রধান ইপিজেড, বন্দর, এয়ারপোর্ট, রাষ্ট্রায়াত্ত তেল স্থাপনা, কয়েকটি কন্টেইনার ডিপো মিলে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান রয়েছে নগরীর এই দক্ষিনাংশে। ফলে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষের চলাচল এ সড়কে। অথচ গেলো এক সপ্তাহ ধরে সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি এমন ভয়ানক যানজটের কবলে পড়ে নাকাল মানুষ।

পুরো সড়কেই বিশৃঙ্খলভাবে চলছে যানবাহন। বিশেষ করে বন্দরে পণ্যবাহী যানবাহনের প্রবেশে ধীরগতি, রাস্তার পাশে দাড়িয়ে থাকা গাড়ি আর টানা বর্ষনে খানাখন্দ। এসব মিলে পুরো মহানগরে সবচেয়ে বেশি যানজট এখন এই সড়কে।

এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমসিম খেতে হচ্ছে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরাও। তবে এরপরও যানজট নিরসনে সর্বাত্মক চেষ্টার কথা বলছে পুলিশ। পাশাপাশি যানচলাচলের গতি আরো বাড়াতে খানাখন্দ মেরামতেও কাজ করছে সিটি কর্পোরেশন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর