channel 24

সর্বশেষ

  • চুয়াডাঙ্গায় ধর্ষণে বাধা দেয়ায় মামা খুন, গণপিটুনিতে নিহত ধর্ষকও

  • ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে ভাবনা নেই বিএনপির

  • রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরতে না চাওয়ার অন্যতম কারণ পরিবারের বাড়তি সদস্য

  • আশুগঞ্জে কিশোরীকে ধর্ষণ, যুবক আটক

  • আমাজনের দাবানল ঠেকাতে সেনা পাঠানোর নির্দেশ

  • রোহিঙ্গাদের প্ররোচনা দানকারী এনজিওগুলো চিহ্নিত করছে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • কমরেড মোজাফফর আহমদ আর নেই

  • সারাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫

  • মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

  • মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ছে, সফলতা আসবে

  • কাশ্মীরে জাতিসংঘের অফিস অভিমুখে লংমার্চের ডাক

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

  • ইতালি ও জাপানের শ্রমবাজারের শিগগিরই নতুন চুক্তি: নৌপ্রতিমন্ত্রী

  • রাজধানীতে চলছে বনসাই প্রদর্শনী

  • কিছুটা নিয়ন্ত্রণে ডেঙ্গুর প্রকোপ, আজও দুজনের মৃত্যু

মিতু হত্যার রহস্যের জট খুলছে না এখনও

মিতু হত্যার রহস্যের জট খুলছে না এখনও

কেন এবং কে খুন করিয়েছে? চট্টগ্রামে মিতু হত্যার তিন বছরেও তার জবাব মেলেনি। তদন্তই শেষ করতে পারেনি পুলিশ। এতে তাদের গাফিলতি দেখছেন নিহতের স্বজনরা।

পুলিশের দাবি, দ্রুতই দেয়া হবে চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার অভিযোগপত্র। দীর্ঘদিন ধরে প্রধান সন্দেহভাজন মুসাকে ঘিরেই ঘুরপাক খাচ্ছে সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা মিতু হত্যাকান্ডের রহস্য। তিনবছর পেরিয়ে গেলেও যার কুল-কিনারা করতে পারেনি পুলিশ।

শুধু তাই নয়, এখনো জানা যায়নি কেন খুন হতে হলো এ গৃহবধূকে এবং কে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকান্ডে মুসাকে প্রধান সন্দেহভাজন বলা হলেও তাকে ধরতে তেমন কোন তোড়জোড় নেই প্রশাসনেরও। মিতুর স্বজনদের অভিযোগ, ঠিকমতো হচ্ছে না তদন্ত কাজ।

এতোদিনেও চাঞ্চল্যকর এ হত্যার বিচার প্রক্রিয়া শুরু না হওয়ায় তদন্ত কাজে স্বচ্ছতা ও সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে সুশীল সমাজ।   

এ ঘটনায় সন্দেহভাজন ১১ জনের মধ্যে এখন পর্যন্ত ধরা পড়েছে সাতজন। এরমধ্যে দুজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তবে তদন্তে অগ্রগতি আছে জানিয়ে দ্রুত অভিযোগপত্র দেয়ার কথা জানান পুলিশ কমিশনার।

২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রামের ব্যস্ততম জিইসি মোড়ে নৃশংসভাবে খুন হন মাহমুদা মিতু। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর