channel 24

সর্বশেষ

  • করোনায় ক্ষতির মুখে ছাপা অক্ষরের গণমাধ্যম

  • ফাঁকা ঢাকায় ঢেকে যাচ্ছে নিম্নবিত্তের আয়ের সব পথ

  • গণমাধ্যমের জন্য জরুরি প্রণোদনা প্যাকেজ দাবি এডিটরস গিল্ড বাংলাদেশের

  • ফিলিপাইনে উড্ডয়নের পরপরই বিমানে আগুন, নিহত ৮

  • শেরপুরে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

  • করোনা: বিশ্বে প্রাণহানির সংখ্যা প্রায় ৩৪ হাজার, আক্রান্ত ৭ লাখ ২০ হাজার

  • ইতালিতে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৭৫৬ জনের প্রাণহানি

  • দানব হয়ে উঠছে করোনা, প্রাণহানি ৩২ হাজার ১৩৭ জনের

  • চার মাসের বেতন নেবেন না রোনালদো

  • করোনা প্রতিরোধে দাতব্য সংস্থা 'দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন'র আত্মপ্রকাশ

  • বাহাত্তরে বঙ্গবন্ধুর টাঙ্গাইল সফরে ১ লাখ ৪ হাজার অস্ত্র জমা দেন মুক্তিযোদ্ধারা

  • স্পেনে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৩৮ জনের প্রাণহানি

  • কাঁচা পাট ও চিংড়ি রপ্তানি বন্ধে খুলনায় কর্মহীন ২৩ হাজারের বেশি শ্রমিক

  • করোনার দুশ্চিন্তায় জার্মান মন্ত্রীর আত্মহত্যা

  • ফরিদপুর পতিতা পল্লীর যৌনকর্মীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

অস্ত্রের মুখে ভূমিদস্যুর কব্জায় শিক্ষকের ভিটেমাটি

অস্ত্রের মুখে ভূমিদস্যুর কব্জায় শিক্ষকের ভিটেমাটি

অস্ত্রের মুখে রেজিস্ট্রি নিয়ে যুবলীগ নামধারী সাত ভূমিদস্যু দাবি করছে তারা কিনে নিয়েছে জায়গাটি। এরপর বাড়ি ছাড়তে অনবরত হুমকি-চাপ। ফলে, চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাপদাদার ভিটেমাটি হারিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন সাবেক শিক্ষক, শতবর্ষী নিরঞ্জন চক্রবর্তী ও তার পরিবার। এ নিয়ে মামলা হলেও ধরা ছোঁয়ার বাইরে আসামিরা।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা সদরের এলাকায় জীর্ণ মাটিতে পরিবার নিয়ে থাকতেন একসময়কার পন্ডিত শিক্ষক হিসেবে এলাকায় পরিচিত শিক্ষক নিরঞ্জন চক্রবর্তী। কিন্তু সেটিই এখন ভূমিলোভীদের কব্জায়।

অভিযোগ, গত ১০ এপ্রিল অস্ত্রের মুখে এই বসতভিটাসহ আশপাশের প্রায় আটগন্ডা ভূমি নিজেদের নামে লিখে নেয় যুবলীগ নামধারী কামরুল ইসলাম হেলাল, আনোয়ার, মানিকসহ কয়েকজন। পরে তাদের হুমকির মুখে স্বজনদের নিয়ে বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হন শতবর্ষী এই মানুষটি। আশ্রয় নেন অন্যত্র।   

স্থানীয়দের অভিযোগ, তাদেরও হুমকী দিচ্ছে অভিযুক্তরা। আর নিরঞ্জনের সাবেক কর্মস্থল আনোয়ারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দাবি, সুষ্ঠু বিচারের।

এঘটনায় গত ১৮ এপ্রিল সাতজনকে আসামী করে মামলা মামলা হয়। এখন জড়িতদের ধরতে চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দায়ীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার মাধ্যমে শংকামুক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে যাওয়ার পরিবেশ চেয়েছেন ভূক্তভোগীরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর