channel 24

সর্বশেষ

  • গাজীপুরে পুলিশের বিরুদ্ধে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

  • বেসরকারি উদ্যোগে ৪০টি জিপি সেন্টার চালু, যার নাম ডাক্তারখানা

  • অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের মধ্যাকাশে দুই প্লেনের সংঘর্ষ, নিহত ৪

  • রাজধানীর বাড্ডায় ৩৬ কেজি গাঁজাসহ আটক ২

  • যশোরে জমি উদ্ধারের নামে শিক্ষার্থীদের দিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর

  • সিটি ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

  • করোনায় বিধ্বস্ত চীনের অর্থনীতি, ক্ষতি ১২ হাজার কোটি ডলার

  • অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না ভাষা সৈনিক আব্দুল মালেক

  • পাকিস্তানের করাচিতে বিষাক্ত গ্যাসে ১৪ জনের মৃত্যু

  • ২১শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষ্যে চার স্তরের নিরাপত্তা: ডিএমপি কমিশনার

  • মাগুরায় ডাকাতদলের দু'পক্ষের বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

  • প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করলেন নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি রোববার

  • বাঁধ উন্নয়নে মাটির বদলে বালু, টেক্সটাইল ব্যাগের বদলে প্লাস্টিকের ব্যাগ!

  • চসিক নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে সতর্ক আ.লীগ-বিএনপি

অস্ত্রের মুখে ভূমিদস্যুর কব্জায় শিক্ষকের ভিটেমাটি

অস্ত্রের মুখে ভূমিদস্যুর কব্জায় শিক্ষকের ভিটেমাটি

অস্ত্রের মুখে রেজিস্ট্রি নিয়ে যুবলীগ নামধারী সাত ভূমিদস্যু দাবি করছে তারা কিনে নিয়েছে জায়গাটি। এরপর বাড়ি ছাড়তে অনবরত হুমকি-চাপ। ফলে, চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাপদাদার ভিটেমাটি হারিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন সাবেক শিক্ষক, শতবর্ষী নিরঞ্জন চক্রবর্তী ও তার পরিবার। এ নিয়ে মামলা হলেও ধরা ছোঁয়ার বাইরে আসামিরা।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা সদরের এলাকায় জীর্ণ মাটিতে পরিবার নিয়ে থাকতেন একসময়কার পন্ডিত শিক্ষক হিসেবে এলাকায় পরিচিত শিক্ষক নিরঞ্জন চক্রবর্তী। কিন্তু সেটিই এখন ভূমিলোভীদের কব্জায়।

অভিযোগ, গত ১০ এপ্রিল অস্ত্রের মুখে এই বসতভিটাসহ আশপাশের প্রায় আটগন্ডা ভূমি নিজেদের নামে লিখে নেয় যুবলীগ নামধারী কামরুল ইসলাম হেলাল, আনোয়ার, মানিকসহ কয়েকজন। পরে তাদের হুমকির মুখে স্বজনদের নিয়ে বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হন শতবর্ষী এই মানুষটি। আশ্রয় নেন অন্যত্র।   

স্থানীয়দের অভিযোগ, তাদেরও হুমকী দিচ্ছে অভিযুক্তরা। আর নিরঞ্জনের সাবেক কর্মস্থল আনোয়ারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দাবি, সুষ্ঠু বিচারের।

এঘটনায় গত ১৮ এপ্রিল সাতজনকে আসামী করে মামলা মামলা হয়। এখন জড়িতদের ধরতে চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দায়ীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার মাধ্যমে শংকামুক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে যাওয়ার পরিবেশ চেয়েছেন ভূক্তভোগীরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর