channel 24

সর্বশেষ

  • চ্যারিটেবল মামলা: হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন; শুনানি মঙ্গলবার

  • রয়্যাল রিগ্যালিয়া মিউজিয়াম পরিদর্শন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • সরকারের কাছে মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার পূরণ হয়েছে বলেই...

  • নির্বাচনে ভোটারের সংখ্যা কমেছে: রাজশাহীতে ইসি সচিব

  • অর্থনীতিতে সরকারের ১০০ দিন উদ্যমহীন...

  • বৈদেশিক ঋণের দায় শোধ সামনের চ্যালেঞ্জ: সিপিডি

  • ত্রুটিমুক্ত রেজাল্টসহ ৫ দফা দাবিতে নিউমার্কেট মোড় অবরোধ করে...

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

  • শ্রীলঙ্কা ট্র্যাজেডি: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩২১; আটক ৪০...

  • দেশটিতে পালিত হচ্ছে রাষ্ট্রীয় শোক; জরুরি অবস্থা জারি...

  • আইএসের সাথে মিলে স্থানীয় জঙ্গিগোষ্ঠী এনটিজে হামলা চালায়: মনিরুল..

  • শেখ সেলিমের নাতি জায়ানের মরদেহ আনা হবে কাল: হানিফ

  • ভারতে লোকসভা নির্বাচন: ৩য় দফায় ১১৭ আসনে ভোটগ্রহণ চলছে...

  • গুজরাটের আহমেদাবাদে ভোট দিলেন নরেন্দ্র মোদি

পাহাড়ে গত দেড়বছরে খুনের শিকার ৭০ জন

পাহাড়ে গত দেড়বছরে খুনের শিকার ৭০ জন

আবারও নিরীহ মানুষের রক্ত ঝরলো পাহাড়ে। বন্ধ হচ্ছে না খুনোখুনি। গেলো দেড়বছরে হত্যার শিকার হয়েছেন অন্তত ৭০ জন। সবগুলো হত্যার নেপথ্যে, আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর আধিপত্য বিস্তার।

সবশেষ বাঘাইছড়িতে সাতখুনের জন্যও দায়ী করা হচ্ছে দুটি সংগঠনকে। পুলিশ বলছে, সন্ত্রাসীরা সীমান্ত পেরিয়ে যাওয়ায় ধরা কঠিন হয়ে পড়ছে। আর সুশীল সমাজের মতে, সবপক্ষকে নিয়ে সমন্বিত উদ্যোগ ছাড়া শান্তি ফিরবে না পার্বত্য জনপদে।

বিভিন্ন সংস্থার হিসাব বলছে, তিন পার্বত্য জেলায় গত দেড়বছরে মারা গেছেন অন্তত ৭০ জন। গতবছরের আগস্টে নানিয়ারচরে ৬ জন খুনের পর, সোমবার সবচেয়ে বড় হত্যাকাণ্ড হলো বাঘাইছড়িতে।

আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব-সংঘাতে কয়েক বছর ধরেই উত্তপ্ত পাহাড়। পাহাড়ের মানুষ বলছে, আঞ্চলিক সংগঠগুলোর মধ্যে মেরুকরণ, আধিপত্য বিস্তার, চাঁদাবাজিসহ নানা কারণে বাড়ছে এই খুনোখুনি। 

বাঘাইছড়িতে হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপ ও জনসংহতি সমিতি সন্তু লারমা গ্রুপ দায়ী বলে মনে করছেন সেনা কর্মকর্তারা। জানান, নির্বাচনে জনসংহতির চেয়ারম্যান প্রার্থী বড়ঋষি চাকমা ভোটবর্জনের পর সহিংসতার হুমকি দেন।   

যেকোন হত্যাকাণ্ডের পর কিছুদিন চলে সাঁড়াশি অভিযান। তৎপরতা বাড়ে সব বাহিনীর। কিন্তু শেষপর্যন্ত খুব কমই ধরা পড়ে জড়িতরা।

শুধু অভিযানই নয় এমন সংঘাত বন্ধে আঞ্চলিক সংগঠনগুলোকে আলোচনার টেবিলে আনা দরকার বলেও মনে করেন পাহাড়ের বিভিন্ন মহল।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর