channel 24

সর্বশেষ

  • ট্রাম্প একই মিথ্যে বলেছেন ১৫০ বারের বেশি!

  • সীমিত পরিসরে চলবে খেলাধুলা, মানতে হবে দশ নির্দেশনা: ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

  • ১০টি জলাশয় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে: মেয়র তাপস

  • ৬ মাস দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাচ্ছেন চট্টগ্রাম সিটির প্রশাসক

  • ভক্ত-অনুরাগীদের ভালোবাসায় সুরস্রষ্টা আলাউদ্দিন আলীকে শেষ বিদায়

  • বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধের দাবি সিনহার মায়ের

  • আমি সিনহা নামে কাউকে চিনি না: ইলিয়াস কোবরা

  • অবশেষে ক্রিকেটে দলের শ্রীলঙ্কা সফর চূড়ান্ত

  • চাল আমদানির আগে পরিস্থিতি বিবেচনা করা হবে: কৃষিমন্ত্রী

  • নিজেদের তৈরি খাদ্যে মাছের উৎপাদনে সফল ফরিদপুরের মৎস্য চাষিরা

  • বাদামের পুষ্টিগুণ

  • কৃষি সংকট মোকাবেলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পারিবারিক সবজি বাগান

  • বরগুনায় ইউএনও'র মামলায় কারাগারে যুবলীগ নেতা

  • সিনহা হত্যা: আসামিদের রিমান্ডের সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন

  • সিনহা হত্যার ঘটনা তদন্তে কমিটি আরও ৭ দিন সময় চেয়েছে

নির্যাতনের পর নারীকে ইয়াবা দিয়ে চালান, পুলিশি তদন্তে গুমট ফাঁস

নির্যাতনের পর নারীকে ইয়াবা দিয়ে চালান, পুলিশি তদন্তে গুমট ফাঁস

অপহরণ, ধর্ষণ। অতঃপর ইয়াবা দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া। ফলাফল চার মাসের কারাভোগ। চট্টগ্রামে এমনই নির্মমতার শিকার হয়েছেন এক নারী। সম্প্রতি পুলিশের দুটি ইউনিটের তদন্তে বেরিয়ে আসে, বাবার সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে, সৎ মাকে এভাবে হেনস্তা করা হয়েছে। আর এই কাজে সম্পৃক্ত ছিলেন এক ওসিসহ তিন পুলিশ সদস্য।

গেল মাসের প্রথম সপ্তাহে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েও স্বস্তিতে নেই এই নারী। প্রতিনিয়ত পাচ্ছেন হুমকি। তাই রয়েছেন আতংকে।

ঘটনাটি গেল বছরের ২৯ আগস্টের। অভিযোগ, ওইদিন বিকেলে নগরীর হালিশহর এলাকার বাসা থেকে তাকে তুলে নিয়ে যান স্বামীর প্রথম স্ত্রীর সন্তান খোকনসহ কয়েকজন। তাকে ধর্ষণের পর ফেলে দেয়া হয়, সীতাকুণ্ডের কুমিরায়। এরপর ইয়াবাসহ এই নারীকে আটক দেখায় পুলিশ। কারাভোগ করেন চারমাস।  

আরও জানতে: যে রোগ হলে মনে থাকে সব কিছু!

আসামির মরদেহে হারকিউলিসের চিরকুট নিয়ে প্রশ্ন

উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে

তবে আসল ঘটনা বেরিয়ে আসে পিবিআই ও ডিবির তদন্তে। আদালতের নির্দেশে তদন্ত শেষে তারা সম্প্রতি যে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন তাতে বলা হয়, এই নারী ইয়াবা কারবারি নন। অভিযুক্তদের সাথে যোগসাজশে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। যাতে সম্পৃক্ত সীতাকুন্ড থানার সাবেক ওসি ইফতেখার হাসান, এসআই সিরাজ মিয়াসহ তিন পুলিশ মিলে মোট ১৩ জন।  

মূলত বাবার সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে এমন ঘটনা সাজান খোকন-অভিযোগ ভুক্তভুগী নারীর। যদিও তা অস্বীকার করেন খোকন।

এ ব্যাপারে বক্তব্য পাওয়া যায়নি অভিযুক্ত দুই পুলিশ কর্মকর্তার। তবে ঘটনাটি তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান জেলা পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নির্যাতিত নারীর আইনজীবীরা পুরো বিষয়টি আদালতে উপস্থাপন করবেন মঙ্গলবার ৫ ফেব্রুয়ারি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর