channel 24

সর্বশেষ

  • আজ ২৬ শে মার্চ; মহান স্বাধীনতা দিবস...

  • জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা...

  • ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা...

  • সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয় প্রধানমন্ত্রীর

  • গণতন্ত্র হরণের মাধ্যমে স্বাধীনতার চেতনা ভূলুন্ঠিত করা হয়েছে: ফখরুল

  • ঐক্যবদ্ধ থাকলে জনগণকে কেউ অধিকারবঞ্চিত করতে পারবে না: ড. কামাল

  • কুষ্টিয়ায় স্বাধীনতা দিবসে শ্রদ্ধা জানানো শেষে জেলা বিএনপির...

  • সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জনকে আটকের অভিযোগ

  • মগবাজারে মনোয়ারা হাসপাতালে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে ২ শ্রমিকের মৃত্যু

পরিকল্পিত পর্যটকবান্ধব না হওয়ায় রাঙ্গামাটির প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে পর্যটকরা

পরিকল্পিত পর্যটকবান্ধব না হওয়ায় রাঙ্গামাটির প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে পর্যটকরা

বিপুল সম্ভাবনা থাকার পরও খুব বেশি এগুতে পারেনি রাঙামাটির পর্যটন শিল্প। অথচ এটি বাস্তবায়নে একাধিক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাজনৈতিক এবং নীতি নির্ধারকরা। এছাড়া, পর্যাপ্ত অবকাঠামো উন্নয়ন না হওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন ঘুরতে আসা পর্যটকরা।

কাপ্তাই হ্রদ। এশিয়ার বৃহত্তম কৃত্রিম জলাধার। এই হ্রদকে ঘিরে রাঙ্গামাটিকে পর্যটকবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ষাটের দশকে নানা পরিকল্পনা নেয় সরকার। তারই অংশ হিসেবে ১৯৮৩ সালে শহরে তৈরি করা হয় ঝুলন্ত সেতু। যা এখন সব পর্যটকের কাছে প্রধান আকর্ষণ।  

তবে এরপর কার্যত আর কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি এখানকার পর্যটন বিকাশে। ফলে হতাশ উদ্যোক্তারাও। এছাড়া এই শিল্পের বিকাশে স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থাগুলোও কখনো কারো পরামর্শ নেয়নি-এমন অভিযোগ এই খাতের সাথে সংশ্লিষ্টদের।

একই মত নাগরিক সমাজের। তবে সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে এই শিল্পকে এগিয়ে নেয়ার কথা জানান পৌর মেয়র।

পার্বত্য শান্তি চুক্তি অনুসারে পর্যটন খাতকে জেলা পরিষদের কাছে হস্তান্তর করা হলেও, সংস্থাটি তেমন কোন উদ্যোগ নেয়নি বলে স্বীকার করেন সংশ্লিষ্টরা।

শুধু পরিকল্পনা গ্রহণেই সীমাবদ্ধ না থেকে, তার সঠিক বাস্তবায়নের দাবি সংশ্লিষ্টদের।  

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর