channel 24

সর্বশেষ

  • বিরোধীরা চাইলে নির্বাচনকালীন সরকার ছোট হবে, না চাইলে নয়...

  • রাজনীতিতে যেকোনো জোটকে স্বাগত জানায় আওয়ামী লীগ...

  • নির্বাচনি অঙ্গীকারের চেয়ে বেশি অর্জিত হয়েছে...

  • ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে সঠিক সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে...

  • বিদেশিদের কাছে নালিশ করে লাভ হবে না...

  • খুনি, দুর্নীতিবাজ ও নারী কটূক্তিকারীদের ঐক্য হয়েছে...

  • সড়ক দুর্ঘটনায় শুধু চালককে দোষারোপ নয়, পথচারীদেরও সচেতন হতে হবে...

  • সৌদি সফর নিয়ে গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী

  • নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে আলোচনার দাবি অযৌক্তিক: সেতুমন্ত্রী

  • নাশকতার মামলায় বিএনপির মহাসচিবসহ শীর্ষ ৭ নেতার...

  • হাইকোর্টের দেয়া জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল

  • ব্যারিস্টার মঈনুল ও জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলার ধরনে হাইকোর্টের অসন্তোস

  • ব্যারিস্টার মঈনুলের কাছে ক্ষমা চাইতে মাসুদা ভাট্টিকে লিগ্যাল নোটিশ

  • যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম

  • হত্যার আগ মুহূর্তে সাংবাদিক খাশোগিকে ফোন করেছিলেন...

  • সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান: তুর্কি পত্রিকা ইয়েনি সাফাক

চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারে ভারতের সাথে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি ইতিবাচক

চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারে ভারতের সাথে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি ইতিবাচক

ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় সাত রাজ্যে পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির খসড়া অনুমোদনকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন ব্যবসায়ী-বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, এর মাধ্যমে ভারতের পাশাপাশি অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে বাংলাদেশও।

তবে এক্ষেত্রে কর্মব্যস্ততার সাথে তাল মিলিয়ে বন্দরের সক্ষমতা এবং সড়ক অবকাঠামো টেকসই করার ওপর জোর দিয়েছেন তারা। ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় সাত রাজ্যে পণ্য পরিবহনে দীর্ঘদিন ধরেই চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে আসছিল দেশটি। নানা স্তরে দীর্ঘ পর্যালোচনার পর সবশেষ গত ১৭ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার বিষয়ে চুক্তির খসড়া অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা।

বর্তমানে বছরে গড়ে ৩০ লাখ কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করে চট্টগ্রাম বন্দর। বছরে যার গড় প্রবৃদ্ধি ১০ শতাংশের বেশি। বিশ্লেষকদের মতে, এরমধ্যে ভারত যদি দুইলাখ কন্টেইনারও হ্যান্ডলিং করতে চায়, তা করা অসম্ভব নয় এই বন্দরে। তবে, এজন্য ক্রমবর্ধমান আমদানী-রপ্তানীর বিপরীতে বাড়াতে হবে সক্ষমতাও।       
 
ব্যবসায়ী নেতারাও বিষয়টিকে দেখছেন ইতিবাচক হিসেবে। বলছেন, বিভিন্ন শুল্ক ও মাশুল আদায়ের মাধ্যমে লাভবান হবে দুই দেশ। তবে এই সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে কোন অসাধুচক্র যেন অনৈতিক কাজ করতে না পারে সেজন্য থাকবে হবে সতর্ক।
তবে কবে নাগাদ ভারতের পণ্য পরিবহন শুরু হবে এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তার আগে, নির্দিষ্ট করা রুটে টেকসই সড়ক অবকাঠামো গড়ে তোলার উপরও জোর দিলেন সংশ্লিষ্টরা। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর