channel 24

সর্বশেষ

  • মন্ত্রীদের সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে...

  • নতুন সরকারের মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী

  • ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: সাবেক ২ আইজিপির হাইকোর্টে জামিন

  • দেশে আরও ৪ সপ্তাহ কার্যক্রম চালাতে পারবে অ্যাকর্ড: আপিল বিভাগ

  • ঘুষগ্রহণ মামলা: আপিল বিভাগে ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার জামিন

  • রাজধানীর বারিধারায় জে ব্লকে যমুনা ব্যাংকের বুথে গার্ডকে হত্যা

  • নোয়াখালীর কবিরহাটে গণধর্ষণ: বিচার দাবিতে জেলা শহরে আজও...

  • বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধন; মামলা জেলা গোয়েন্দা সংস্থায় হস্তান্তর

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বাড়ছে দ্বন্দ্ব-সংঘাত

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বাড়ছে দ্বন্দ্ব-সংঘাত

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব-সংঘাত বাড়ছে। গত এক বছরে নিজেদের দ্বন্দ্বে প্রাণ গেছে ২২ রোহিঙ্গার। পুলিশের খাতায় উঠেছে ৪ শতাধিক মামলা। এসব অপরাধের কারণে শঙ্কিত স্থানীয়রা। নিরাপত্তার বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে সবাইকে। উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জেলা প্রশাসকও। তবে পুলিশ বলছে, এসব ঘটনা নিয়ন্ত্রণে তৎপর তারা।

৩১ আগস্ট, টেকনাফের লেদা ক্যাম্পে ইয়াবা নিয়ে বিরোধে এক রোহিঙ্গার গুলিতে নিহত হন মোহাম্মদ ইয়াসের নামে আরেক রোহিঙ্গা। একইদিনে জুয়ার আসর নিয়ে হয় গুলিবিনিময়।

সবশেষ সোমবার বালুখালি ক্যাম্প থেকে অপহরণ করা হয় ৬ রোহিঙ্গাকে। যাদের  গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করা হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে যৌথবাহিনী।  
শুধু এসব ঘটনাই নয়, গত এক বছরে নিজেদের হাতে খুন হয়েছে ২২ রোহিঙ্গা। এছাড়া সংঘাত, মাদকসহ নানা অপরাধে মামলা হয়েছে ৪ শতাধিক। ফলে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন স্থানীয়রা।

রোহিঙ্গাদের এমন বেপরোয়া আচরণ নিরাপত্তার জন্য বড় শঙ্কার কারণ বলে মনে করছেন এই সাবেক সেনা কর্মকর্তা। এসব ঘটনাকে উদ্বেগজনক মানছেন জেলা প্রশাসকও। তবে পুলিশ বলছে, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপরাধ দমনে তৎপর তারা।
কক্সবাজারে এখন সবমিলে রোহিঙ্গার সংখ্যা প্রায় ১১ লাখ। এখন, ক্যাম্পে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে রোহিঙ্গাদের মোটিভেশনের পাশাপাশি নিরাপত্তা জোরদার না হলে এ অঞ্চলে নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে বলেও মত সংশ্লিষ্টদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর