channel 24

সর্বশেষ

  • নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া...

  • ইটপাটকেল-টিয়ারশেল নিক্ষেপ; পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন

বঙ্গোপসাগরে চালানো জরিপে অজানা রহস্যের সন্ধান

বঙ্গোপসাগরে চালানো জরিপে অজানা রহস্যের সন্ধান

বঙ্গোপসাগরে চালানো জরিপে, প্রাথমিকভাবে উপর স্তরের প্রায় দেড়শ প্রজাতির মাছ ও মৎস্য জাতীয় প্রাণীর অস্তিত্ব মিলেছে। এখন ৩ দেশের ৮টি পরীক্ষাগারে চলছে বিচার-বিশ্লেষণ। আগামী ২ মাসের মধ্যে জরিপের প্রাথমিক ও ৬ মাসের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন তৈরীর কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। যার আলোকে তৈরী হবে আগামীর সামুদ্রিক মৎস্যনীতি।

বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় সবশেষ ১৯৭৮-৭৯ সালে ব্যাপক পরিসরে জরিপ চালায় নরওয়ের জাহাজ ডক্টর ফ্রিডজফ ন্যানসেন। তা থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্তের আলোকে পরবর্তীতে সামুদ্রিক মৎস্যনীতি গ্রহণ করে সরকার।

দীর্ঘদিন পর, গেল ২ থেকে ১৭ আগস্ট আবারও বড় পরিসরে এমন জরিপে অংশ নেয় ডক্টর ফ্রিডজফ ন্যানসেন। যা চালানো হয় সাগরের ১ লাখ ১৮ হাজার বর্গকিলোমিটার বিশেষ অর্থনৈতিক এলাকায়। সাগরের ২০ থেকে ২ হাজার ২শ মিটার গভীরতায় এই জরিপে ছিলেন দেশিবিদেশী ৩০ জন গবেষক। তাতে ৪১টি পয়েন্ট থেকে প্রায় ২০ ধরনের নমুনা সংগ্রহ করে জাহাজেই চালানো হয় প্রাথমিক পরীক্ষা।
     
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেস এন্ড ফিশারিজ প্রফেসর ড. সাইদুর রহমান চৌধুরী জানান, এই জরিপে সাগরের অনেক অজানা রহস্য উন্মোচিত হয়েছে। যার ওপর বিস্তারিত গবেষণায় মিলবে উপরিস্তরের মাছের প্রজাতি আর মজুদসহ নানা তথ্য।

বাংলাদেশ মিশনের রিজিওনাল কো-অর্ডিনেটর ড. ফ্রিডজফ ন্যানসেন বলেন, এই গবেষণা থেকে পাওয়া ফলাফলের ভিত্তিতে সময়োচিত সমুদ্র ও মৎস্যনীতি তৈরী হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর