channel 24

সর্বশেষ

  • এশিয়া কাপ: পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করবে বাংলাদেশ

  • একাদশে নেই সাকিব আল হাসান, নাজমুল শান্ত ও নাজমুল অপু...

  • জায়গা পেয়েছেন মুমিনুল হক, সৌম্য সরকার ও রুবেল হোসেন

  • যান্ত্রিক ত্রুটিতে ১৬৪ যাত্রী ও ৭ ক্রু নিয়ে চট্টগ্রাম বিমান বন্দরে...

  • জরুরি অবতরণ ইউএস বাংলার কক্সবাজারগামী ফ্লাইট, আহত ৪

  • রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে সংকটে ভুগছে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

  • জিয়া চ্যারিটেবল মামলা: খালেদা জিয়া ও মনির জামিনে থাকবেন...

  • দুদকের রায়ের তারিখ ধার্যের আবেদন বিষয়ে আদেশ ৩০ সেপ্টেম্বর

  • জনগণের তথ্যের অধিকার প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যমকে...

  • অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করতে হবে: প্রধান বিচারপতি

  • মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে ১৪৫ বাংলাদেশিসহ ১৭৩ জন আটক

  • এসকে সিনহার ব্যাংক হিসাবে অর্থ জমার ঘটনা অনুসন্ধানে...

  • ফারমার্স ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক...

  • এ কে এম শামীমসহ ৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক

  • ড. মঈন খানের বাসায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতসহ কূটনীতিকরা...

  • নৈশভোজের আয়োজন ছিল, রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হয়নি: মান্না

খাগড়াছড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ৭

খাগড়াছড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ৭

আবারও নৃশংস হত্যাকান্ড পাহাড়ে। খাগড়াছড়ি সদরের স্বনির্ভর এলাকায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রাণ গেছে ইউপিডিএফ সমর্থিত বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীসহ সাতজনের। পুলিশ বলছে, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করেই এ হত্যাকাণ্ড। এ জন্য জনসংহতি সমিতি এমএন লারমা গ্রুপকে দায়ী করছে ইউপিডিএফ। ঘটনার পর আতংক বিরাজ করছে পুরো এলাকায়। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ ও বিজিবি।

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় স্বনির্ভর এলাকায় শনিবার সকাল সাড়ে আটটায় দলীয় কর্মসূচির জন্য জড়ো হন ইউপিডিএফ সমর্থিত বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এসময় তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় দুবৃর্ত্তরা। চলে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ। 

গুলিতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, সহ সম্পাদক এলটন চাকমা ও মহলছড়ি উপজেলার স্বাস্থ্য সহকারী জিতায়ন চাকমা। হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নেতা পলাশ চাকমা, বরুণ চাকমা ও রুপন চাকমা নামে এক কলেজ শিক্ষার্থী। আহত তিনজনকে পাঠানো হয় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

পুলিশের দাবি, পাহাড়ে বিবদমান দুটি গ্রুপের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঘটে থাকতে পারে এ হত্যাকাণ্ড। এ হামলার জন্য জনসংহতি সমিতি এম এন লারমা গ্রুপকে দায়ি করছে ইউপিডিএফ। তবে এ ব্যাপারে বক্তব্যের জন্য জনসংহতি সমিতির মুখপাত্র সুধাকর ত্রিপুরার মুঠোফোনে কয়েকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর পর পুরো এলাকায় বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা। আতংকিত স্থানীয়রা। মোতায়েন করা হছে অতিরিক্ত পুলিশ। রাঙ্গামাটিতে ছয়খুনের মাত্র তিনমাসের ব্যবধানে আবারও এমন বড় হত্যাকাণ্ড ঘটলো পাহাড়ে। 

 

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর