channel 24

সর্বশেষ

  • রাজবাড়িতে জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হাতে যুবক খুন

  • বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীরের দাফন সম্পন্ন

  • বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শোক দিবস পালন

  • চট্টগ্রামে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ফের করোনার সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা

  • জাতীয় শোক দিবস: চট্টগ্রামে শ্রদ্ধা ভালোবাসায় ইতিহাসের মহানায়ককে স্মরণ

  • সিনহা হত্যায় গণশুনানি কাল

  • ইসরায়েল-আরব আমিরাত শান্তি চুক্তিতে মধ্যপ্রাচ্যে সমালোচনার ঝড়

  • শোক দিবসে গণস্বাস্থ্যের প্লাজমা সেন্টার উদ্বোধন

  • আমদানি কমায় বেড়েছে শাক-সবজির দাম, স্বাভাবিক মসলার দাম

  • ২৪ ঘন্টায় করোনায় প্রাণহানি ৩৪

  • মৃত্যুর ছয় দিন আগে বিদেশি মালিকানাধীন ৫টি গ্যাসক্ষেত্র রাষ্ট্রায়ত্ত করেন বঙ্গবন্ধু

  • স্বাবলম্বী দেশ গড়া ছিল বঙ্গবন্ধুর লক্ষ্য

  • জনগণের অর্থ ব্যবহারে সতর্ক থাকার আহ্বান পরিকল্পনামন্ত্রীর

  • করোনাকালীন বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা দিচ্ছেন ডা. হরিশংকর দাশ

  • সিনহা হত্যা: স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটির গণশুনানি কাল

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ। হঠাৎ করেই কেজিতে দ্বিগুন দাম বাড়ায় হিমশিম অবস্থা ক্রেতাদের। বিক্রেতারা বলছেন, পাইকার ও আড়তদারদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হয়েছে বলে চড়া মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। আর আড়তদারদের দাবি, দামের এমন উর্ধ্বগতিতে হাত নেই তাদের। এজন্য আমদানিকারকদের সাথে সরকারের বসার আহবান তাদের।

রংপুর নগরীর বড় পাইকারী বাজারে পেঁয়াজের পাল্লা বিক্রি হচ্ছে ৫'শ টাকায়। দুদিন আগে যার মূল্য ছিল আড়াইশো টাকা। একই অবস্থা পেয়াজ উৎপাদনে পরিচিত জেলা, ফরিদপুরের। এছাড়া স্থল বন্দর এলাকা যশোর, দিনাজপুরেও পণ্যটির দাম লাগামহীন।

ক্রেতারা বলছেন, দেশে যেমন ক্যাসিনো জুয়া খেলা হচ্ছে, পেঁয়াজ নিয়েও হচ্ছে তেমনি জুয়া খেলা। বিক্রেতারা যেভাবে দাম বলছেন সেভাবেই দিতে হচ্ছে ক্রেতাদের। তাই এই বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি কামনা করছেন ক্রেতারা।

খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়। এতে রীতিমত হিমশিম অবস্থা ক্রেতাদের।

ক্রেতারা আরও বলছেন, পেঁয়াজই যদি এত টাকা দিয়ে কিনি তবে অন্যান্য জিনিস কিভাবে কিনবো। আবার অনেকেই ক্রয়সীমার বাইরে চলে গেছে পেঁয়াজের দাম বলেও অভিযোগ করছেন।

বিক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের দাম বাড়ার কারণে লোকসানে পড়তে হচ্ছে তাদেরও। আগে যে পরিমাণ বিক্রি হতো তা এখন নেমে দাঁড়িয়েছে অর্ধেকে।

বাজারের এ অস্থিতিশীল পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠক করেছে, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

আড়তদারদের দাবি, দামের এমন উর্ধ্বগতিতে হাত নেই তাদের। তাই এটি নিয়ন্ত্রণ করতে হলে, আমদানিকারকদের সাথে বসার পরামর্শ তাদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর