channel 24

সর্বশেষ

  • ঢাকায় স্বাস্থ্য ভবনের সামনে মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের বিক্ষোভ

  • সুনামগঞ্জে বেতনের দাবিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের বিক্ষোভ

  • প্রকৃতির নিস্তব্ধতায় সাফারী পার্কে আফ্রিকান কমন ইলান্দ ও জেব্রা শাবকের জন্ম

  • ঢাকায় পৌঁছেছেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর

  • বাঙালির মুক্তির সনদ ৬-দফা

  • করোনার প্রভাবে বন্ধ খুলনা থেকে মোংলা বন্দর পর্যন্ত রেললাইনের কাজ; বাড়ছে মেয়াদ ও খরচ

  • সংকটে ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ শিল্প, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

  • বাজেটে ঘাটতি জিডিপির পাঁচ শতাংশ ছাড়িয়ে যাওয়ার আভাস

  • যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভের ১২তম দিনে লাখো মানুষের ঢল

  • সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন

  • গণপরিবহনে জীবাণুনাশকের বদলে সাবান-পানির স্প্রে

  • করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি থাকায় শিগগিরই চালু হচ্ছে না পাসপোর্টের বায়ো এনরোলমেন্ট

  • চট্টগ্রামে স্বাস্থ্যবিভাগের হিসাবের চেয়ে মৃত্যু চারগুণ বেশি!

  • ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত

  • মন্ত্রী বীর বাহাদুর করোনায় আক্রান্ত

তেল বিক্রিতে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকা লোকসান দিচ্ছে বিপিসি

তেল বিক্রিতে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকা লোকসান দিচ্ছে বিপিসি

তেল বিক্রি করে প্রতিদিন গড়ে ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকা লোকসান দিচ্ছে রাষ্ট্রীয় করপোরেশন বিপিসি। তবে, এই টাকা সমন্বয়ে ভোক্তাদের ওপর চাপ না বাড়িয়ে বিকল্প জ্বালানি ব্যবহারের পথ খুঁজছে সংস্থাটি। যদিও, প্রতিবছরই বাড়তি টাকার জন্য হাত পাততে হচ্ছে সরকারের কাছে। এছাড়া, কয়েক বছরে মুনাফা করা টাকা দিয়ে বেশ কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বিপিসি।

জ্বালানি তেলের সিংহভাগের চাহিদা মেটাতে নির্ভরতা আমদানিতে। যার যোগান দিয়ে থাকে মধ্যপ্রাচ্যের ১১টির মতো দেশ। এছাড়া, কেনা হয় উন্মুক্ত দরপত্র কিংবা তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমেও। ফলে, দরদামের ক্ষেত্রে পুরোপুরি ভরসা রাখতে হয় আন্তর্জাতিক বাজারের প্রবণতা এবং চাহিদা আর সরবরাহের ওপর। ২০১৪ সালের দিকে, ব্যাপক দাম কমে যাওয়ায়, বড় স্বস্তি পেয়েছিল অর্থনীতি। কিন্তু, এখন আর নেই সেই অবস্থা।

আমদানির দায়িত্বে থাকা রাষ্ট্রীয় করপোরেশন বিপিসি বর্তমানে প্রতি ব্যারেল ডিজেল কিনছে ৭২ থেকে ৭৫ ডলারে। তাদের হিসাব হলো, এটি ৭০-এর নিচে থাকলেই কেবল লাভ-লোকসান সমান থাকে করপোরেশনের। সেই হিসেবে, বর্তমানে তাদের দৈনিক গড় লোকসান ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকা। এছাড়া, লোকসান গুণতে হচ্ছে বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য আনা ফার্নেস তেলেও।

বছরে ৫৮ লাখ টন জ্বালানি তেলের চাহিদা আছে দেশে। তা মেটাতে দৈনিক গড়ে সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা বেচাকেনা করে করপোরেশন। এর মধ্যে ৬৫ শতাংশই ডিজেল; যার বেশিরভাগের ব্যবহারকারী সাধারণ মানুষ। তাই, এই মুহূর্তে বাড়তি দামের চাপ তাদের ওপর চাপাতে চায় না সংস্থাটি। 

তবে, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কয়েক বছরে বিপুল মুনাফা করা করপোরেশনের উচিত হবে, কোনো না কোনোভাবে জনগণের প্রত্যক্ষ সহযোগিতা নিশ্চিত করা।

করপোরেশনের চেয়ারম্যান মোঃ সামছুর রহমান বলছেন, সেগুলো শেষ হলে দীর্ঘমেয়াদি সুফল পাবে জনগণ। 

মুনাফার টাকা দিয়ে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে করপোরেশন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর