channel 24

সর্বশেষ

  • লেবাননে বিস্ফোরণে নিহত দুই বাংলাদেশির বাড়িতে শোকের মাতম

  • করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা দেবে জাপান

  • ডা. সাবরিনা ও স্বামী আরিফুলসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল

  • নাসিমকে নিয়ে কটূক্তি: হাইকোর্টে জামিন পেলেন বেরোবি’র সেই বহিষ্কৃত শিক্ষিকা

  • করোনায় বিপর্যস্ত মানুষের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছে 'সেইফ ফাউন্ডেশন'

  • নেত্রকোনায় ট্রলারডুবিতে ১৮ জনের মরদেহ উদ্ধার

  • সিনহা নিহতের ঘটনায় দায় ব্যক্তির, কোনো বাহিনীর নয়: সেনাপ্রধান

  • রুপার ইট দিয়ে রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

  • চট্টগ্রামে প্রকাশনা বন্ধ ৫টি দৈনিক পত্রিকার, অনিশ্চিয়তায় কয়েকশো সাংবাদিক-কর্মচারির ভবিষ্যৎ

  • ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নষ্ট করার চেষ্টা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  • ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে দেশের রপ্তানি বাণিজ্য

  • করোনায় দেশে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৫৪

  • ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির

  • নয়াপল্টনে আব্দুল মান্নানের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

  • ছবিতে লেবাননের বৈরুতে বিস্ফোরন

আন্দোলনে স্থবির হংকংয়ের উৎপাদন কার্যক্রম, অর্থনীতিতে ধসের শঙ্কা

আন্দোলনে স্থবির হংকংয়ের উৎপাদন কার্যক্রম, অর্থনীতিতে ধসের শঙ্কা

হংকংয়ে শ্রমিক, ছাত্র, শিক্ষকের পর এবার আন্দোলনের সাথে জড়িয়ে পড়ছেন অন্যান্য পেশাজীবীরা। সড়কে বাড়ছে ব্যানার-পোস্টার হাতে মানুষের উপস্থিতি। শিল্পসহ নানা খাতের সংশ্লিষ্টতা বাড়ায় স্থবিরতা দেখা যাচ্ছে উৎপাদন কার্যক্রমে। সব মিলিয়ে স্থানীয় অর্থনীতিতে ধসের শঙ্কা বাড়ছে বলে জানান বাণিজ্য সংশ্লিষ্টরা।

দীর্ঘায়িত হচ্ছে হংকংয়ের আন্দোলন। সড়ক থেকে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ছে বিমানবন্দরসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ স্থানে। একের পর এক হামলার ঘটনাও ঘটছে। তবে এর সমাধানে তেমন আগ্রহ দেখাচ্ছে না চীন সরকার ও স্থানীয় প্রশাসন।

শ্রমিক, ছাত্র, শিক্ষকদের পর এবার আন্দোলনের সাথে জড়িয়ে পড়ছেন অন্যান্য পেশাজীবীরা। ব্যানার-পোস্টার নিয়ে পথে নামছেন আইনজীবী ও চিকিৎসকরা। পিছিয়ে নেই উৎপাদন, শিল্পসহ নানা খাতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও। স্থবিরতা দেখা যাচ্ছে উৎপাদন কার্যক্রমে। এর প্রভাব পড়ছে, হংকংয়ের সার্বিক অর্থনীতিতে।

আর্নেস্ট অ্যান্ড ইয়ং চীনের চেয়ারম্যান আলবার্ট এনজি বলেন, বিমানবন্দরসহ বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি আক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। বিদেশিরাও আক্রান্ত হচ্ছেন। এতে আন্তর্জাতিক মহলে হংকংয়ের ভাবমুর্তি নষ্ট হচ্ছে। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বৈদেশিক বাণিজ্য ও বিদেশি বিনিয়োগে।

হংকং প্রশাসনের আর্থিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৬ সালের পর প্রতি বছরেই হ্রাস পেয়েছে ওই অঞ্চলের জিডিপি। ২০১৭ সালে হংকংয়ের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ছিলো ৩ দশমিক ৮ শতাংশ। ২০১৮ সালে যা নামে ৩ শতাংশে। আর চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে হংকংয়ের জিডিপি প্রবৃদ্ধি দেখানো হয়, ২ দশমিক ৭ শতাংশ। এ অবস্থায় স্থানীয় অর্থনীতিতে ধসের শঙ্কা বাড়ছে বলে জানান বাণিজ্য সংশ্লিষ্টরা।

KPMG চীন অ্যান্ড এশিয়া প্যাসিফিকের চেয়ারম্যান, হনসন তো বলেন, গেলো কয়েক বছরে হংকংয়ের অর্থনৈতিক অবস্থা ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়েছে। স্থানীয়দের জীবনযাত্রায় এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোও হুমকির মুখে রয়েছে। সংকটের মুখে পড়তে পারে এ অঞ্চলের সার্বিক অর্থনীতি।

এদিকে অর্থনৈতিক ধস ঠেকাতে আন্দোলন বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে একাধিক ব্যাংকিং করপোরেশন। প্রশাসনের সাথে আন্দোলনকারীদের আলোচনার আহ্বান জানিয়ে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করে এইচএসবিসি, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডসহ কয়েকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর