channel 24

সর্বশেষ

  • ভৈরবে এক কোটি টাকার কারেন্ট জালসহ আটক ৩

  • ফেনীর সোনাগাজীতে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

  • ৩ দিন ধরে বন্ধ শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল

  • লালন ফকিরের ১২৯ তম তিরোধান দিবস আজ

  • ২০২০ সালে সম্ভাব্য বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি ৩ দশমিক ৪ শতাংশ: আইএমএফ

  • এগিয়ে থেকেও ভারতের সঙ্গে ড্র করলো বাংলাদেশ

  • কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী আব্দুল্লাহর দুই মেয়ে ও বোন আটক

  • বুয়েট ক্যাম্পাস জুড়ে রঙিন গ্রাফিতি যেন পথচারীদের ডেকে বলছে আর কতো, এবার থামো

  • সরকার দলীয় এমপি শামসুল ও শাওনের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান শুরু

  • পাবিপ্রবি'তে ইটিই বিভাগকে ট্রিপল-ই রূপান্তর দাবিতে আন্দোলন

  • কয়লা দুর্নীতি: বড়পুকুরিয়ার সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

  • রূপপুর বালিশকাণ্ড: গণপূর্তের ১৬ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত

  • মুসলিম বান্ধব পর্যটনের জন্য প্রয়োজনীয় সব উপাদান দেশে আছে: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

  • মনপুরায় আলাউদ্দিন মোল্লা হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ

  • লক্ষ্মীপুরের জুতা রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের ৩০ টি দেশে

ফ্রিজ-রেফ্রিজারেটরের বাজার দখলে দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো

ফ্রিজ-রেফ্রিজারেটরের বাজার দখলে দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো

কোরবানী ঈদের আগে চাহিদা বাড়ে নানা মডেলের ফ্রিজ ও রেফ্রিজারেটরের। খাবার সংরক্ষণের দরকারি এ পণ্যের বাজারে তাইতো এখন চলছে নানা ধরণের ছাড়, উপহার ও কিস্তির ব্যবস্থা। ব্যবসা সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সরকারি দেশিয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে নানা সুবিধা দেয়ায় কমেছে এ পণ্যের দাম। ফলে দেশের সর্বসাধারণের হাতের নাগালে এখন প্রয়োজনীয় এ পণ্য।

বেশ কয়েকবছর ধরে দেশে হোম অ্যাপ্ল্যায়েন্সের ব্যবসায় জোয়ার লক্ষ্য করা যায়। বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোকে এক প্রকার কোনঠাসা করেই দেশিয় প্রতিষ্ঠানগুলো একচেটিয়া ব্যবসা শুরু করেছে।

বছর জুড়ে ২০ হাজার কোটি টাকার এ ব্যবসার ১২ হাজার কোটি টাকা হয় শুধুমাত্র ফ্রিজ ও রেফ্রিজারেটরের। যার ৭০ ভাগই হয় কোরবানি ঈদের মৌসুমে।

প্রতি বছর কোরবানি ঈদের আগে বাজারে চাহিদা বাড়ে খাদ্য সংরক্ষণের অন্যতম যন্ত্র ফ্রিজ ও রেফ্রিজারেটরের। দরকারি এ পণ্য কিনতে তাই খরচের একটা অংশ বাঁচিয়ে রাখেন সাধারণ বাঙালি পরিবারগুলো। আগে ধনীদের কাতারে এ পণ্যের নাম নেয়া হলেও এখন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও সহজেই পাওয়া যায় এ ফ্রিজ কিংবা রেফ্রিজারেটর।

এ ব্যবসার শীর্ষ অংশ বিদেশি প্রতিষ্ঠানের হাতে থাকলেও সময়ের সাথে সাথে তা এখন দেশিয় প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে চলে এসেছে। দেশে কারখানা স্থাপন, কাঁচামাল আমদানিতে ভ্যাট/ট্যাক্সের সুবিধাসহ নানা প্রণোদনায় এখাতের ব্যবসা এখন তুঙ্গে। তাইতো, এ পণ্যের বাজারের শতকরা ৮০ ভাগ এখন দেশিয় প্রতিষ্ঠানগুলোর হাতে।

এবারের ঈদের বাজার দখলের প্রতিযোগীতায় তাই প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই দিচ্ছে নানা ছাড়-অফার। ১০ হাজার টাকা ফ্রিজ থেকে শুরু করে লাখ টাকার ফ্রিজ, যে মডেলের যে ধরণের কিংবা যে ডিজাইনেরই নেয়া হোক না কেন ক্রেতা আকর্ষণে চলছে নানা আয়োজন।

তবে বাজার দখলের প্রতিযোগিতায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই এখন কিস্তির সুবিধা দিচ্ছে। মডেল ভেদে ফ্রিজ কিনতে তাই মাত্র ২ হাজার থেকে শুরু হয় কিস্তির অংক। ফলে একেবারে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও ছড়িয়ে পড়ছে এ পণ্য। রয়েছে পুরনো মডেল ফেরত দিয়ে নতুন মডেলের ফ্রিজ কেনার অফারও।

সরকারি সকল সুবিধা ও প্রত্যক্ষ সহযোগিতা পাওয়া গেলে বছরজুড়ে এ ব্যবসা আরো সুদৃঢ় অবস্থানে যেতো বলে মত সংশ্লিষ্টদের।

নিউজটির ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর