channel 24

সর্বশেষ

  • চট্টগ্রামে এবার চিকিৎসা পেলেন না স্বাস্থ্য পরিচালকের মা!

  • কক্সবাজারে নতুন করে ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত

  • ভার্চুয়াল শপথ নিলেন ১৮ বিচারপতি

  • করোনাকালে অসহায়দের পাশে 'ওল্ড ল্যাবরেটরি অ্যাসোসিয়েশন'

  • মেহেরপুরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন তিন চিকিৎসক

  • রিয়াল বেতিস-সেভিয়া ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরছে লা লিগা

  • প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা ছাড়া কোনো রোগীকে ফেরত দেওয়া যাবে না

  • সোমবার শুরু হচ্ছে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল

  • কাল শুরু হচ্ছে সীমিত আকারে ট্রেন চলাচল

  • চট্টগ্রামে ১০ দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুন

  • চলে গেলেন সাবেক তারকা ফুটবলার গোলাম রব্বানী হেলাল

  • করোনায় দেশে আরও ২৮ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৭৬৪

  • সম্প্রচার কর্মীদের এ্যাম্বুলেন্স সুবিধা দেবে পাথওয়ে

  • বাংলাদেশকে ৬ হাজার ২২২ কোটি টাকা সহায়তার ঘোষণা আইএমএফের

  • ঝিনাইদহে শিশু সন্তানকে হত্যার পর মার আত্মহত্যা

সিলিকন ভ্যালির পাশাপাশি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা

সিলিকন ভ্যালির পাশাপাশি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা

প্রযুক্তি অঞ্চল হিসেবে বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালি। এ তালিকায় আরো চীনের শেনজেন, বেইজিং ও ভারতের ব্যাঙ্গালুরু। সম্প্রতি এর সাথে যুক্ত হয়েছে মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা। গেলো কয়েক বছরে এ শহরে প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ হয়েছে লাখো ডলার। বিনিয়োগ ও কর্মী তালিকায় এগিয়ে বিদেশিরা। স্থানীয়দের সম্পৃক্ততা বাড়াতে প্রণোদনা দিচ্ছে মেক্সিকো সরকার।

নতুন প্রযুক্তি অঞ্চলে পরিণত হচ্ছে, মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা। গেলো কয়েক বছরে এখানে প্রযুক্তি খাতের বিনিয়োগ ছাড়িয়েছে লাখো ডলার। বিনিয়োগ আকর্ষণে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার।

সফটওয়্যার প্রকৌশলী অভিলাস পাতিল বলেন, লাতিন আমেরিকার মধ্যে প্রযুক্তি খাতে কাজের জন্য বেশ দারুণ জায়গা গুয়াদালাজারা। যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালির সাথে এর পার্থক্য খুব বেশি নয়।

অভিবাসন নীতি তুলনামূলক সহজ হওয়ায় বিভিন্ন দেশের প্রযুক্তিবিদরা ভিড় করছেন, লাতিন আমেরিকার দেশটিতে। নিজস্ব ব্যবসা স্থাপন করছেন কেউ কেউ।

সফটওয়্যার প্রকৌশলী সজীব গুপ্তা বলেন, প্রযুক্তি খাতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় মেক্সিকো অনেক পিছিয়ে- এমন গুজবের কারণে এ দেশের ক্যারিয়ার নিয়ে চিন্তায় ছিলাম। তবু পরিবারের পরামর্শে এখানে এসেছি। প্রযুক্তি খাতে কাজের জন্য এটি আসলেই দারুণ জায়গা।

অভিলাস পাতিল আরও জানান, যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী নীতি কঠোর হচ্ছে। তাই অনেকেরই পছন্দের তালিকায় ঠাঁই পাচ্ছে মেক্সিকো। এতে বিভিন্ন দেশের প্রযুক্তিবিদরা এখানে ভিড় করছেন। খাত সংশ্লিষ্ট নতুন নতুন প্রতিষ্ঠানও স্থাপন করা হচ্ছে।

প্রকৌশল পরিচালক ইসিলা বোরোয়েল বলেন, ভারত, চীন, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিলসহ ১৮ দেশের প্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্টরা মেক্সিকোতে কাজ করছেন। প্রত্যেকের চিন্তায় ভিন্নতা আছে। তবু সবার প্রচেষ্টায় এগিয়ে যাচ্ছে মেক্সিকোর প্রযুক্তি খাত।

গেলো কয়েক বছরে প্রযুক্তি খাতে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে মেক্সিকোতে। এর ফলে অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে বলে দাবি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীর।

মেক্সিকোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী জানান, প্রযুক্তি খাতে সবার জন্য সমান সুযোগ থাকায় এর সাথে যুক্ত হচ্ছে বিশ্বের সব প্রান্তের মানুষ। বিভিন্ন পেশায় প্রতিযোগিতা থাকলেও নিজেদের সহযোগিতার মধ্যে কাজ করেন প্রযুক্তিবিদরা। এতে সব শ্রেণির মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন ঘটছে।

বিদেশিদের পাশাপাশি এ খাতে স্থানীয়দের সম্পৃক্ততা বাড়াতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার।

নিউজটি ভিডিওতে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর