channel 24

সর্বশেষ

  • জেএফএ কাপের ফাইনাল থেকে ঠাকুরগাঁওকে বাদ দেয়ায় প্রতিবাদ সভা

  • বিজয়ী শিক্ষার্থীদের ভিসা জটিলতা, যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন সহায়করা

  • ভারতের উত্তর প্রদেশে বজ্রপাতে নিহত ৩২

  • থামছে না হংকংয়ের চীন বিরোধী বিক্ষোভ

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনায় সংঘাতে জড়িয়ে পড়ছে গ্রামবাসী

  • য়্যুভেন্তাসকে হারিয়ে স্পার্সদের জয় ৩-২ গোলে

  • চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকাকে গলা কেটে হত্যা

  • ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ভারতীয় দল ঘোষণা

  • আর একবার যদি ফিরে পাওয়া যেতো তাকে!

  • তুরাগে পড়া ট্যাক্সিক্যাবটির এখনও সন্ধান মেলেনি

  • দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও লজ্জার হার বাংলাদেশের

  • আজ পুনরায় উৎক্ষেপণ করা হবে ভারতের চন্দ্রযান-২

  • উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের পানি কমলেও পদ্মার পানি বিপৎসীমার উপরে

  • ৯ শতাংশ ঋণের সুদে ৬ শতাংশ আমানত চান ব্যাংকাররা

  • বাড্ডায় গণপিটুনির ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩

মেলবোর্নে খাবারের উচ্ছিষ্ঠ থেকে নবায়নযোগ্য জ্বালানি তৈরি

মেলবোর্নে খাবারের উচ্ছিষ্ঠ থেকে নবায়নযোগ্য জ্বালানি তৈরি

ঘরের আবর্জনা ও খাবারের উচ্ছিষ্ঠ থেকে নবায়নযোগ্য জ্বালানি তৈরি হচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে। যা সরবরাহ করা হচ্ছে প্রায় ৭৫ হাজার ঘরে। সেবার পরিধি বাড়াতে ভিক্টোরিয়াতে আরো ২০টি প্রকল্প স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান। এর বিরোধিতাও করছেন অনেকে। তবে পরিবেশবিদরা জানিয়েছেন, এটি নিরাপদ ও পরিবেশবান্ধব।

মেলবোর্নের উত্তরাঞ্চলে উচ্ছিষ্ঠ খাবারের পুনব্যবহার শুরু করেছে ইয়ার ভ্যালি ওয়াটার নামের প্রতিষ্ঠান। প্রযুক্তির সাহায্যে ঘরের আবর্জনা ও খাবারের উচ্ছিষ্ঠ থেকে তৈরি হচ্ছে নবায়নযোগ্য জ্বালানি।

পরিত্যক্ত খাবার সংগ্রহের পর সেগুলো ট্যাংকে মজুদ করা হচ্ছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রূপান্তর হচ্ছে গ্যাসে। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান, বর্তমানে আবর্জনা মজুদের জন্য যে ট্যাংক রয়েছে তার বার্ষিক ধারণক্ষমতা ৩৩ হাজার টন। যাতে উৎপাদিত গ্যাস সরবরাহ হচ্ছে প্রায় ৭৫ হাজার ঘরে। এ সেবা সম্প্রসারণে, ভিক্টোরিয়াতে আরো ২০টি প্রকল্প চালুর প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তবে পাওয়া যায়নি পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র।

ভিক্টোরিয়াতে প্রতি বছর ২০ লাখ টনের বেশি খাবার নষ্ট হয়। নবায়নযোগ্য গ্যাস উৎপাদন প্রকল্প সম্প্রসারণ করা হলে সেগুলোর পুনব্যবহার সম্ভব। ছাড়পত্র পেলে আরো প্রকল্প চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

এদিকে গেলো বছরে চীনে কয়েকটি রিসাইকিলিং প্রকল্প বন্ধ হওয়ায়, অস্ট্রেলিয়াতে সমালোচনার মুখে পড়েছে, উচ্ছিষ্ঠ খাবার থেকে জ্বালানি রূপান্তরের এ প্রকল্প। একে পরিবেশের জন্য হুমকি বলে দাবি করছেন কেউ কেউ। এর পরিবর্তে জমি ভরাটে উচ্ছিষ্ঠ খাবার ব্যবহারের কথা বলছে, ভিক্টোরিয়ার কয়েকটি জেলা কাউন্সিল।

ইউরোপের দেশগুলোতে জমি ভরাটে ব্যায় কম হওয়ায় বিভিন্ন প্রকল্পে আবর্জনা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার চিত্র ভিন্ন। এখানে জমি ভরাট ব্যায় কমাতে আবর্জনা ব্যবহার করা হয়। নতুন কোনো প্রকল্পে আবর্জনা ব্যবহার হলে জমি ভরাটে অনেক বেশি খরচ হবে।

অন্যদিকে এ প্রকল্পকে পরিবেশের জন্য শতভাগ নিরাপদ বলে দাবি করছেন পরিবেশবিদরা। এর মাধ্যমে নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাত সম্প্রসারণ হবে বলে জানান সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী।

প্রতিদিন প্রচুর খাবার নষ্ট হয়। গ্যাস উৎপাদনে সেগুলোর ব্যবহার হলে পরিবেশে ক্ষতিকর উপাদানের সংখ্যা কমে যাবে। আবর্জনাকে জ্বালানিতে রূপান্তর প্রক্রিয়াকে কখনোই মানুষকে আবর্জনা তৈরিতে উৎসাহিত করবে না। বরং এ ধরনের প্রকল্প নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতকে অনেক বেশি শক্তিশালী কবে।

এমন প্রকল্পের সংখ্যা বাড়ানো হলে গ্যাসসহ অন্যান্য জ্বালানি পণ্য সাশ্রয়ী হবে বলে জানান বাজার বিশ্লেষকরা।

দেখুন ভিডিওতে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর