channel 24

সর্বশেষ

  • করোনাভাইরাসের কারণে চীনে বন্ধ কাঁকড়া রপ্তানি; বিপাকে চাষী ও ব্যবসায়ীরা

  • আগামী মাস থেকে যুক্তরাষ্ট্রে রপ্তানি হবে বাংলাদেশে তৈরি স্মার্টফোন

  • হরিণের চামড়ার ওপর সৌম্য সরকারের বিয়ের আশীর্বাদ!

  • চট্টগ্রাম সিটিতে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন

  • ভারতের কাছে হারলো বাংলাদেশ নারী দল

  • মধ্যপ্রাচ্যেও ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস, ইরানে প্রাণ গেছে ১২ জনের

  • ট্রাক ড্রাইভারকে মারধর ও চাঁদাবাজির অভিযোগে ঢাবির ২ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

  • দিল্লিতে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী সহিংস বিক্ষোভ, পুলিশ সদস্য নিহত

  • চট্টগ্রামে বিদ্যুৎকেন্দ্র করার পরিকল্পনা আছে: রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত

  • চট্টগ্রাম সিটিতে সবধরনের প্রচারণা সামগ্রী অপসারণের নির্দেশ

  • চট্টগ্রাম সিটিতে বিএনপির কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন চূড়ান্ত

  • শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে দূরে ঠেলে স্বপ্নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন কুড়িগ্রামের ফারজানা

  • সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

  • পাকিস্তানের সঙ্গে সর্ম্পক উন্নয়নে ভারতের প্রতি আহ্বান ট্রাম্পের

  • অসন্তোষ মা ও মামার, সামিরার দাবি সত্যের জয় হয়েছে

'দুই তৃতীয়াংশ মানুষ মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপণ্যে দাম বাড়ে'

'দুই তৃতীয়াংশ মানুষ মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপণ্যে দাম বাড়ে'

দুই তৃতীয়াংশ মানুষই মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ে। দরিদ্র ও মধ্যবিত্তদের ৩৮ শতাংশ বাজেটে কৃষি ভর্তুকির দাবি করেছেন। ব্র্যাকসহ তিনটি বেসরকারি উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের খানা জরিপে উঠে এসেছে এমনই তথ্য। প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, ভর্তুকি দিয়ে হলেও গরীব ও কৃষকদের কম সুদে ঋণ দেয়া উচিত।

কয়েক বছর ধরেই সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আকার বাড়িয়ে গরীব মানুষকে সরাসরি সহায়তা করছে সরকার। অর্থনীতির আকার বাড়লেও সরকারি হিসাবেই বাড়ছে ধনী আর দরিদ্রের আয় বৈষম্য। সাথে কর্মসংস্থানের সমস্যা বিষয়টিকে করে তুলছে অনেকটাই অসহনীয়।

দরিদ্র ও মধ্যবিত্তদের মধ্যে প্রায় ৫ হাজার খানা বা পরিবারে বাজেট নিয়ে জরিপ চালিয়েছে কয়েকটি বেসরকারি উন্নয়ন ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ব্র্যাক, উন্নয়ন সমন্বয় এবং আই-সোশ্যালের করা এই জরিপে, সাধারণ মানুষের দুই-তৃতীয়াংশই বলছেন, বাজেটের ফলে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পায়। 

দিন দিন উৎপাদন বাড়ায় সাফল্যের ঢেঁকুর তোলেন সরকারি কর্তাব্যক্তিরা। কিন্তু অর্থনীতিতে আতর্নাদ হিসেবে বাড়ছে আয় বৈষম্য। কিন্তু কেন?

গবেষণা প্রতিবেদনের ওপর আলোচনায় উঠে আসে, দরিদ্র মানুষের ব্যাংকিং সেবা নিয়েও। বড়লোকরা যেখানে বিভিন্ন ভাবে কম সূদে ঋণ পান সেখানে গরীবের বেলায় বেশ কঠোর ব্যাংকওয়ালারা।

বর্তমানে ক্ষুদ্র ঋণ থেকে বা সাধারণ ব্যাংকিং সেবায় ১০ থেকে ৩০ শতাংশ সূদে ঋণ পান দরিদ্র ও কৃষকরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর