channel 24

সর্বশেষ

  • লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যার 'মূল হোতা' ড্রোন হামলায় নিহত

  • দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ২৬৯৫ জন, মৃত্যু ৩৭

  • ব্যর্থ সরকার মানুষকে বাঁচাতে কাজ করছে না: রিজভী

  • সার্কাসের হাতির মতো সমালোচনার বৃত্তে বিএনপি: কাদের

  • সরকারি ব্যবস্থাপনায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেবে না আনোয়ার খান হাসপাতাল

  • এক রুবেলের বদলে আরেক রুবেল জেল! দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

  • সরকারি বীজে পাট চাষ করে বিপাকে নাটোরের কৃষকরা

  • ঢাকায় বাড়ছে যানবাহনের চলাচল

  • ভুল পদ্ধতিতে তৈরি হ্যান্ড স্যানিটাইজার শরীরের জন্য ক্ষতিকর

  • টিসিবির পণ্য উপজেলা পর্যায়েও বিক্রির ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

  • জাতীয় পরিচয়পত্র সেবায় নতুন সংকট; অনলাইনে প্রতারণার ফাঁদ

  • যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ: আটক অর্ধশতাধিক, ওয়াশিংটনে সেনা মোতায়েন

  • করোনায় ব্রাজিলে একদিনে সর্বোচ্চ ১ হাজার ২৬২ জনের মৃত্যু

  • করোনার উচ্চ সংক্রমণ ঝুঁকিতে দেশের সব বিমানবন্দর

  • রাজধানীতে জেকেজি হেলথ কেয়ার কর্মীদের বিক্ষোভ

'দুই তৃতীয়াংশ মানুষ মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপণ্যে দাম বাড়ে'

'দুই তৃতীয়াংশ মানুষ মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপণ্যে দাম বাড়ে'

দুই তৃতীয়াংশ মানুষই মনে করেন, বাজেটের ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ে। দরিদ্র ও মধ্যবিত্তদের ৩৮ শতাংশ বাজেটে কৃষি ভর্তুকির দাবি করেছেন। ব্র্যাকসহ তিনটি বেসরকারি উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের খানা জরিপে উঠে এসেছে এমনই তথ্য। প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, ভর্তুকি দিয়ে হলেও গরীব ও কৃষকদের কম সুদে ঋণ দেয়া উচিত।

কয়েক বছর ধরেই সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আকার বাড়িয়ে গরীব মানুষকে সরাসরি সহায়তা করছে সরকার। অর্থনীতির আকার বাড়লেও সরকারি হিসাবেই বাড়ছে ধনী আর দরিদ্রের আয় বৈষম্য। সাথে কর্মসংস্থানের সমস্যা বিষয়টিকে করে তুলছে অনেকটাই অসহনীয়।

দরিদ্র ও মধ্যবিত্তদের মধ্যে প্রায় ৫ হাজার খানা বা পরিবারে বাজেট নিয়ে জরিপ চালিয়েছে কয়েকটি বেসরকারি উন্নয়ন ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ব্র্যাক, উন্নয়ন সমন্বয় এবং আই-সোশ্যালের করা এই জরিপে, সাধারণ মানুষের দুই-তৃতীয়াংশই বলছেন, বাজেটের ফলে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পায়। 

দিন দিন উৎপাদন বাড়ায় সাফল্যের ঢেঁকুর তোলেন সরকারি কর্তাব্যক্তিরা। কিন্তু অর্থনীতিতে আতর্নাদ হিসেবে বাড়ছে আয় বৈষম্য। কিন্তু কেন?

গবেষণা প্রতিবেদনের ওপর আলোচনায় উঠে আসে, দরিদ্র মানুষের ব্যাংকিং সেবা নিয়েও। বড়লোকরা যেখানে বিভিন্ন ভাবে কম সূদে ঋণ পান সেখানে গরীবের বেলায় বেশ কঠোর ব্যাংকওয়ালারা।

বর্তমানে ক্ষুদ্র ঋণ থেকে বা সাধারণ ব্যাংকিং সেবায় ১০ থেকে ৩০ শতাংশ সূদে ঋণ পান দরিদ্র ও কৃষকরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর