channel 24

ব্রেকিং নিউজ

  • অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা: রাজধানীর গুলশানে ঢাকা মহানগর...

  • দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ ভূঁইয়া আটক...

  • মতিঝিলে ফকিরেরপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে অভিযানে আটক ১৪২

বাজেট ঘাটতির দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান

বাজেট ঘাটতির দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান

গেলো এক দশকে ক্রমান্বয়ে বড় হয়েছে বাংলাদেশের জাতীয় বাজেটের পরিমাণ। পাল্লা দিয়ে বাড়ে ঘাটতিও।

২০০৮-০৯ অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি ছিলো মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ২ দশমিক ৮ শতাংশ।

এরপর ২০১১-১২ অর্থবছরে যা ৪ শতাংশ এবং ২০১৪-১৫ অর্থবছরে যা দাঁড়ায় ৪ দশমিক ৭ শতাংশে।

তবে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রায় ১ শতাংশ কমে ঘাটতি নামে ৩ দশমিক ৫ শতাংশে। যদিও পরের অর্থবছরেই আবার তা বেড়ে হয় ৪ দশমিক ৮ শতাংশ।

বাজেট ঘাটতির দিক থেকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের ওপরে রয়েছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান।

গত বছরে (২০১৮ সালে) শ্রীলঙ্কার বাজেট ঘাটতি হয় জিডিপির ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। ২০০৯ সালে দেশটিতে ঘাটতি ছিলো ৯ দশমিক ৯ শতাংশ; যা গেলো ১ দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ। আর ২০১৮ সালে পাকিস্তানের বাজেট ঘাটতি হয় জিডিপির ৬ দশমিক ৬ শতাংশ। যা ২০০৯ সালে ছিলো ৬ দশমিক ৩ শতাংশ। সর্বোচ্চ ৮ দশমিক ৮ শতাংশ ঘাটতি ছিলো ২০১২ সালে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাজেট ঘাটতির তালিকায় সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে ভারত। ২০১৮ সালে ঘাটতি ছিলো জিডিপির ৩ দশমিক ৪২ শতাংশ। ২০০৯ সালে ছিলো ৬ দশমিক ৪৬ শতাংশ। ২০১১ সালের পর ভারতের বাজেট ঘাটতির পরিমাণ প্রতি বছরই কমেছে।

এ তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার চেয়ে ভালো অবস্থানে আছে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলো।

২০১৮ সালে সর্বোচ্চ ৩ দশমিক ৭ শতাংশ বাজেট ঘাটতি দেখা গেছে ভিয়েতনাম ও মালয়েশিয়ায়। ২০১৮ সালে ফিলিপাইনের বাজেট ঘাটতি হয় জিডিপির ৩ শতাংশ। গেলো বছরে থাইল্যান্ডের বাজেট ঘাটতি হয় ২ দশমিক ৫ শতাংশ। ২০১৮ সালে ইন্দোনেশিয়ার ঘাটতি হয় জিডিপির ১ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে বাজেটের ভিন্ন চিত্র দেখা যাচ্ছে সিঙ্গাপুরে। ঘাটতির পরিবর্তে দেখা যাচ্ছে উদ্বৃত্ত; ২০১৮ সালে সিঙ্গাপুর বাজেট উদ্বৃত্ত হয় জিডিপির শূন্য দশমিক ৪০ শতাংশ। গেলো ১০ বছরের মধ্যে ৭ বারই ছিলো উদ্বৃত্ত।

প্রতিবেদনটি দেখুন ভিডিওতে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর