channel 24

সর্বশেষ

  • উপজেলা নির্বাচন ছিল একতরফা, যা গণতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত: ইসি মাহবুব

  • রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রে রাশিয়া থেকে ৫২৩ কোটি ৯০ লাখ টাকার...

  • ইউরেনিয়াম কেনার অনুমোদন সরকারের ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির

  • রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার ফেরাতে সৌদিতে ৬০ বিদেশি কূটনীতিকের কাছে...

  • সহায়তা চাইলো বাংলাদেশ; রিয়াদে ব্রিফ করেছেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ

  • খালেদা জিয়ার জামিন আটকে রেখেছে সরকার: মির্জা ফখরুল...

  • আদালত মুক্তি দিলে সরকারের কিছু করার নেই: ওবায়দুল কাদের

  • মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স নিয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন...

  • চেম্বার আদালত; আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি ২৩ জুলাই

সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পেশ

সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পেশ

সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের অসুস্থতার কারণে বাজেটের কিছু অংশ উপস্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বাজেটের আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা।

এডিপি: ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। ঘাটতি ১ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি টাকা।

জিডিপি প্রবৃদ্ধি লক্ষ্য: ৮.২%; মূল্যস্ফীতি ৫.৫%; পরিচালন ব্যয়: ৩ লাখ ১০ হাজার ২৬২ কোটি টাকা।

মোট রাজস্ব আদায় লক্ষ্য: ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা; এনবিআর-এর রাজস্ব আদায়: ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬শ কোটি টাকা।

বৈদেশিক ঋণ: ৬৮ হাজার ১৬ কোটি টাকা; ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে অর্থায়ন: ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা; সঞ্চয়পত্র ও অন্যান্য উৎস থেকে ২৯ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা।

মোবাইল ফোন কোম্পানির টার্নওভার কর ২%; ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত টার্নওভার ভ্যাটমুক্ত।

১০% করে অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে কালো টাকা বিনিয়োগ। হ্রাসকৃত হারে অপ্রদর্শিত আয়ে ফ্ল্যাট ও অ্যাপার্টমেন্ট কেনার সুযোগ। সম্পদের সারচার্জ বেড়ে ৩ কোটি।

কর অবকাশ: কৃষি, গৃহস্থালি যন্ত্রাংশ, আসবাব, মোবাইল ফোন প্লাস্টিক রিসাইক্লিংসহ ২১টি শিল্পখাত।

ঠিকাদারি ব্যবসায় উৎসে কর হ্রাস; পোশাকশিল্পে ১২% আয়কর সুবিধা অব্যাহত।

প্রতিষ্ঠানে প্রতিবন্ধী নিয়োগে ৫০% কর রেয়াত সুবিধা।

ক্যাশ ডিভিডেন্টকে উৎসাহিত করতে স্টক ডিভিডেন্টের ওপর ১৫% কর আরোপ।

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশের করমুক্ত আয়সীমা ৫০ হাজার টাকা।

বাস্তবায়িত হচ্ছে নতুন ভ্যাট আইন। মূসক নিবন্ধন সীমা ৮০ লাখ থেকে ৩ কোটি টাকায় উন্নীত।

ভ্যাটের নতুন চারটি স্তর: ৫, ৭.৫, ১০ ও ১৫ নির্ধারণ। স্থানীয় ব্যবসায়ী পর্যায়ে ভ্যাট হার কমিয়ে ৫%; ব্যক্তিগত বিমান ও হেলিকপ্টারে সম্পূরক শুল্ক বেড়ে ২৫%; গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নবায়ন ফি'র ওপর ১০% সম্পূরক শুল্ক আরোপ; আইসক্রিমের দামের ওপর ৫% সম্পূরক শুল্ক আরোপ।

মোবাইল ফোনের সিমে দ্বিগুণ সম্পূরক শুল্ক আরোপ।

যেসব পণ্যের দাম বাড়ছে: আমদানিকৃত চিনি ও গুঁড়ো দুধ, পার্টিকেল বোর্ড, সিগারেট, গুল, জর্দ্দা, মধু, আমদানিকৃত মোটরসাইকেল, মোবাইল, ব্যক্তিগত গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট, ফিটনেস সনদ, মালিকানা গ্রহণ ও নবায়ন।

যেসব পণ্যের দাম কমছে: রাইস কুকার, ওয়াশিং মেশিন, ব্লেন্ডার,  খেলনা, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, এলইডি টেলিভিশন, প্লাস্টিক রিসাইক্লিং, কৃষি যন্ত্রপাতি, পাউরুটি ও বনরুটি, হাতে তৈরি কেক ও বিস্কুট, দেশে উৎপাদিত লিফট, রেফ্রিজারেটর, এসি, মোটর, অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র, রপ্তানিমুখী পোশাক, ক্যান্সারের ওষুধ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর