channel 24

সর্বশেষ

  • বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের পরিসংখ্যান

  • অনুশীলনে বাংলাদেশ, কথা বললেন রুবেল হোসেন

  • বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার জয়

  • পদ্মা সেতুতে বসানো হলো ১৩তম স্প্যান

  • মেঘনা ও গোমতী দ্বিতীয় সেতুসহ বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন

  • গুজরাটে কোচিং সেন্টারে অগ্নিকাণ্ডে ২০ স্কুলছাত্র নিহত

  • রাজধানীতে এডিস মশার প্রাদুর্ভাব

  • ঈদের ব্যস্ততায় কুষ্টিয়া ও সিরাজগঞ্জের দর্জিপাড়া

  • চতুর্থ দিনের মতো চলছে রেলের আগাম টিকিট বিক্রি

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বাড়ছে চোরাচালান ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম

  • জীবিকা নিয়ে দুঃচিন্তায় কক্সবাজারের জেলেরা

  • মাগুরায় দারিদ্র্য বিমোচনে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে অনিয়ম

  • উদ্বোধনের অপেক্ষায় দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী সেতু

  • টাঙ্গাইলে পুলিশের নির্যাতনে ব্যবসায়ী মৃত্যুর অভিযোগ

  • গাজীপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কার্যকর হলে ভোগান্তি কমবেঃ ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

পদ্মা সেতু প্রকল্পে বরাদ্দের ৪০ শতাংশ কাটছাঁট

পদ্মা সেতু প্রকল্পে বরাদ্দের ৪০ শতাংশ কাটছাঁট

এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে পদ্মা সেতুতে বসছে, ১১ নম্বর স্প্যান। যা সম্ভব হলে, প্রথমবারের মতো এক মাসে দুটি স্প্যান বসানোর লক্ষ্য অর্জন করবে, সেতু কর্তৃপক্ষ। তবে, এই অগ্রগতির বিপরীতে বড় দুশ্চিন্তা, প্রত্যাশিত মাত্রায় টাকা খরচ করতে না পারা। কারণ, চলতি অর্থবছরের এডিপি থেকে কেটে ফেলতে হয়েছে, ৪০ শতাংশ বা পৌনে দুই হাজার কোটি টাকা। আর প্রথম নয় মাসে খরচ করা গেছে, কাটছাঁট হওয়া বরাদ্দের ৬৩ শতাংশ। যাকে অপ্রত্যাশিত বলছেন বিশ্লেষকরা।

সকাল, দুপুর কিংবা বিকেল; সময়ের সাথে খরস্রোতা পদ্মা দেখা দেয় নতুন রূপে।

তারই মাঝখানে, ভারি ভারি যন্ত্রপাতি, বিশ্বমানের প্রযুক্তি আর কয়েক হাজার প্রকৌশলীর দিন-রাতকে এক করা ব্যস্ততা এগিয়ে নিচ্ছে ৩০ হাজার কোটি টাকার সেতু নির্মাণকে। এরই মধ্যে জাজিরা এবং মাওয়া, দুই প্রান্ত মিলিয়ে দাঁড়িয়ে গেছে দেড় কিলোমিটার। চলতি মাসেই যা বাড়বে আরো দেড়শ মিটার।

তবে, এই প্রকল্প বাস্তবায়নে যে চ্যালেঞ্জ নিতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত তাকে নতুন এবং ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা বলছেন প্রকল্প পরিচালক।

মার্চ পর্যন্ত মূল সেতুর কাজ এগিয়ে গেছে চার ভাগের তিনভাগ। আর সার্বিক অগ্রগতি ৬৬ শতাংশ।

তবে, এই গতির সাথে বেমানান চলতি অর্থবছরে টাকা খরচের চিত্র। ফাস্টট্র্যাকের অধীন এই প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বরাদ্দ রাখা হয় প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা।

কিন্তু, খরচ করতে না পারায় ৪০ শতাংশ কেটে সংশোধিত বরাদ্দ নামিয়ে আনা হয় ২৬৫৬ কোটিতে। আর প্রথম নয় মাসে, সেখান থেকে খরচ করা সম্ভব হয় মাত্র ১৬৮৪ কোটি।

পরিকল্পনা কমিশন বলছে, নানা কারণেই অতিরিক্ত বরাদ্দ রাখা হয়েছিল প্রকল্পে। পদ্মা ছাড়াও, ফাস্টট্র্যাকের আরো কয়েক প্রকল্প থেকে কেটে ফেলা হয়েছে বিপুল পরিমাণ টাকা।

দেখুন ভিডিওতে...

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর