channel 24

সর্বশেষ

  • চ্যারিটেবল মামলা: হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন; শুনানি মঙ্গলবার

  • রয়্যাল রিগ্যালিয়া মিউজিয়াম পরিদর্শন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • সরকারের কাছে মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার পূরণ হয়েছে বলেই...

  • নির্বাচনে ভোটারের সংখ্যা কমেছে: রাজশাহীতে ইসি সচিব

  • অর্থনীতিতে সরকারের ১০০ দিন উদ্যমহীন...

  • বৈদেশিক ঋণের দায় শোধ সামনের চ্যালেঞ্জ: সিপিডি

  • ত্রুটিমুক্ত রেজাল্টসহ ৫ দফা দাবিতে নিউমার্কেট মোড় অবরোধ করে...

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

  • শ্রীলঙ্কা ট্র্যাজেডি: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩২১; আটক ৪০...

  • দেশটিতে পালিত হচ্ছে রাষ্ট্রীয় শোক; জরুরি অবস্থা জারি...

  • আইএসের সাথে মিলে স্থানীয় জঙ্গিগোষ্ঠী এনটিজে হামলা চালায়: মনিরুল..

  • শেখ সেলিমের নাতি জায়ানের মরদেহ আনা হবে কাল: হানিফ

  • ভারতে লোকসভা নির্বাচন: ৩য় দফায় ১১৭ আসনে ভোটগ্রহণ চলছে...

  • গুজরাটের আহমেদাবাদে ভোট দিলেন নরেন্দ্র মোদি

'আগামীতে বেসরকারি বিনিয়োগ আর কর্মসংস্থান সৃষ্টিই প্রধান চ্যালেঞ্জ'

'আগামীতে বেসরকারি বিনিয়োগ আর কর্মসংস্থান সৃষ্টিই প্রধান চ্যালেঞ্জ'

সামনের দিনে বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়ানো আর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই প্রধান চ্যালেঞ্জ। ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার মূল্যায়ণ প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনায় সোমবার বিকালে এমন অভিমত দিয়েছেন অর্থনীতিবিদ এবং সরকারের দুই মন্ত্রী।

তারা বলছেন, প্রবৃদ্ধি বাড়ছে মূলত অবকাঠামো নির্মানে সরকারি বিনিয়োগের কারণে। ২০১০ থেকে '১৫ পর্যন্ত ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় অনেক অর্জন থাকলেও আমদানি-রপ্তানি এবং মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যগুলো অর্জন করা সম্ভব হয়নি।

আশির দশকের মাঝামাঝি থেকে পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা নেয়া হলেও মেয়াদ শেষে কোনোটিরই মূল্যায়ন করা হয়নি। এবার প্রথমবারের মতো ২০১০ সাল থেকে ১৫ সাল পর্যন্ত ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার মূল্যায়ন প্রকাশ করতে যাচ্ছে সরকার।

এ নিয়ে আয়োজিত সেমিনারে জানানো হয়, দারিদ্র্য কমানো, নারীর ক্ষমতায়ন, বিদ্যুৎ উৎপাদন ও স্বাস্থ্যখাতের লক্ষ্যগুলো অর্জন করতে পেরেছে ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা। তবে মুল্যস্ফীতি প্রত্যাশা অনুযায়ী নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হয়নি। অর্জিত হয়নি আমদানি-রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রাও।

ওই পরিকল্পনা প্রণয়নের সভাপতি অর্থনীতিবিদ ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদের আশা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

কেউ কেউ মনে করেন, আইন-শৃঙ্খলা ভালো থাকলে অগ্রগতি ভালো হয়। তাই সামনের দিনে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা চান তারা।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলছেন, মৌলিক চাহিদা মেটানোর খাতগুলোতে, বিশেষ করে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে বিনিয়োগ বাড়াতে চায় সরকার।

ভবিষ্যতে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কারিগরি শিক্ষায় বিনিয়োগ বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয় সেমিনারে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর