channel 24

সর্বশেষ

  • জব্দ করা ইয়াবা নিজেদের মধ্যে বণ্টন করে নেয়ায় ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

  • আসামিকে ছেড়ে দিয়ে জব্দ করা ইয়াবা বণ্টন করে নেয়ার ঘটনায়...

  • রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার মামলায় ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

  • রংপুর-৩ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার

  • এবার এনআরসি হবে ভারতের হরিয়ানায়; কংগ্রেসের সমর্থন

  • তদারকিতে গঠন করা হবে পর্যবেক্ষণ কমিটি

  • পুঁজিবাজারে সুশাসন নিশ্চিতে কোনো ছাড় নয়: অর্থমন্ত্রী...

  • ড. কালাম স্মৃতি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডস গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী...

  • বাংলাদেশের জনগণের প্রতি উৎসর্গ করলেন পুরস্কারটি

  • দলের যেই হোক, অপকর্ম করলে কোনো ছাড় নয়: ওবায়দুল কাদের...

  • দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিআরটিসিতে দরকার নেই

  • হাজার চেষ্টা করেও দুর্নীতি ঢেকে রাখতে পারছে না সরকার: মির্জা ফখরুল

  • ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সম্পাদকের শ্রদ্ধা

  • ব্যক্তি হতে পারে, ছাত্রলীগ আদর্শচ্যুত হতে পারে না: নাহিয়ান জয়

  • ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেলে শিশুর মৃত্যু

  • নীলফামারীর পলাশবাড়িতে ট্রেনে কাটা পড়ে মা ও শিশুর মৃত্যু

  • তৃতীয় ও চতুর্থ টি টোয়েন্টির জন্য বাংলাদেশ দল: সাকিব...

  • মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির, মোসাদ্দেক, লিটন, আফিফ...

  • তাইজুল, রুবেল, শফিউল, মোস্তাফিজ, সাইফুদ্দিন...

  • নাঈম শেখ, আমিনুল বিপ্লব ও নাজমুল হোসেন শান্ত...

  • বাদ পড়েছেন সৌম্য, ইয়াসিন আরাফাত ও শেখ মেহেদী হাসান

ডলার নিয়ে কাড়াকাড়ি

ডলার নিয়ে কাড়াকাড়ি

আমদানি ও বিদেশি ঋণের দায় মেটাতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে ব্যাংকগুলো। ফলে ডলার নিয়ে চলছে কাড়াকাড়ি। চাহিদা তীব্র হওয়ায় মাত্র ১ বছরের ব্যবধানে টাকার বিপরীতে ডলারের দাম বেড়েছে ৭ শতাংশ। বিশ্লেষকরা বলছেন, সম্মিলিতভাবে কোনো উপায় বের না করলে ডলার নিয়ে সংকট আরও বাড়বে। যা বাড়িয়ে দিতে পারে বৈদেশিক বাণিজ্যের খরচ।

মাত্র এক বছর আগে এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকের এক ডলারের কিনতে খরচ হলো ৭৮ টাকা ৯০ পয়সা। আর গত ১২ ফেব্রুয়ারি তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৪ টাকা ৫ পয়সা। অর্থাৎ বছরের ব্যবধানে ডলারের তুলনায় টাকার মান কমেছে ৭ শতাংশের বেশি।

এর অন্যতম কারণ বিদেশি ঋণের দায় ও আমাদনি খরচ মেটানোর তো পর্যাপ্ত ডলার নেই ব্যাংকগুলোর হাতে। কারণ ব্যাংকরে লাগামহীন অফশোর ইউনিটের মাধ্যমে বিদেশি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৬২ হাজার কোটি টাকারও বেশি। আর চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধ্বে (জুলাই-ডিসেম্বর) আমদানি ব্যয় বেড়েছে ২৯ শতাংশ। অথচ প্রাপ্তির খাতায় রপ্তানি আয় ৭ দশমিক ১৫ শতাংশ এবং রেমিটেন্স ১২ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়েছে।

ডলারের সংকট এতোটাই তীব্র যে ইতোমধ্যেই আমদানি ঋণপত্রের দায় কিংবা বিদেশি ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে গিয়ে ব্যাংকগুলোর মধ্যে শুরু হয়েছে অসম প্রতিযোগিতা। এক ব্যাংকের গ্রাহকের রপ্তানি বিল বেশি মূল্যে হাঁকিয়ে নিচ্ছে অন্য ব্যাংক। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ ব্যাংক এই অভিযোগে বেশ কিছু ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। ব্যাংকাররা বলছেন, এটা স্থায়ী কোনো সমাধান দিতে পারছেন না।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, এই অবস্থা নিরসনে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাফেদার সম্মিলিত উদ্যোগ নিতে হবে দ্রুত। তা না হলে ভয়াবহ বিপর্যয় ঘটতে পারে।

অস্থিতিশীলতার জন্য চিহ্নিত ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা উচিৎ বলেও মনে করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর