channel 24

সর্বশেষ

  • 'সোনালী কাবিন'-এর কবি আল মাহমুদ মারা গেছেন...

  • রাজধানীর একটি হাসপাতালে রাত ১১:০৫ মিনিটে মারা যান তিনি...

  • মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৮২ বছর

প্রতিবছর আমদানির প্রায় ৪০ শতাংশেরই নেই যথাযথ হিসাব

প্রতিবছর আমদানির প্রায় ৪০ শতাংশেরই নেই যথাযথ হিসাব

দেশে আমদানি বাড়লেও সেই গতিতে হচ্ছে না বিনিয়োগ। ফলে প্রকৃত সুফল মিলছে না মূলধারার অর্থনীতিতে।

প্রতিবছর মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানি হয় যতটা, বিপরীতে প্রকৃত বিনিয়োগ বা অর্থনীতিতে তার সুফল ততটা মিলে কিনা এ নিয়ে নানা মহলে আছে সমালোচনা। মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে পণ্যের বিপরীতে কন্টেইনার ভর্তি বালু, মাটি বা ছাই আমদানি এমন ঘটনাও ঘটছে হরহামেশাই। কাস্টমস এর চোখ ফাঁকি দিয়ে অসাধু ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারিরা প্রায়ই এমন সুযোগ নেয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব বলছে, সবশেষ অর্থবছরে আমদানি বেড়েছে ২৫ শতাংশ। টাকার অঙ্কে প্রায় ১২ কোটি ডলার। বেড়েছে মূলধনী যন্ত্রপাতি ও অন্যান্য ক্যাটাগরির আমদানিও।

বিশ্বব্যাংকের লিড ইকোনমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন বলেন, আমদানি যে হারে বেড়েছে তার যৌক্তিকতা ও প্রকৃত হিসাব মেলানো বেশ কঠিন।

ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফিন্যান্সিয়াল ইনটেগ্রিটির ২০১৭ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে অর্থপাচারের ক্ষেত্রে প্রথম স্থান বাংলাদেশের। প্রতিষ্ঠানটির সবশেষ হিসাবে ২০১৪ সালে বাংলাদেশ থেকে পাচার হয় প্রায় ৭৩ হাজার কোটি টাকা।

ড. জাহিদ হোসেনের মতে, মূলত সদিচ্ছার অভাবেই বাণিজ্যের অন্তরালে মুদ্রাপাচার ঠেকানো যাচ্ছে না। নির্বাচনী অর্থবছরে এ নিয়ে খানিকটা বাড়তি সতর্ক থাকার পরামর্শ তাদের।

ব্যবসায়ীরা জানান, আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের আড়ালে অর্থপাচার হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনবিআরকে আরো জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে।

জিএফআইয়ের গবেষণা অনুযায়ী, দেশের মোট বাণিজ্যিক লেনদেনের ১০ শতাংশেরও বেশি অর্থপাচার হয়ে থাকে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর