channel 24

সর্বশেষ

  • উন্নয়ন ধরে রাখতে অশুভ তৎপরতা রুখতে হবে: রাষ্ট্রপতি

  • ধানমন্ডিতে বৈঠকে বসেছেন ফখরুলসহ জাতীয় ঐক্যের নেতারা

  • জনগণকে নয়, বিদেশিদের আস্থায় নিতে চায় ঐক্যফ্রন্ট: সেতুমন্ত্রী...

  • নীতিহীন ঐক্যে জনগণ থাকবে না: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী...

  • সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সরকারকে আলোচনার আহবান নজরুলের

  • ১৭৭ রোহিঙ্গাকে রাখাইনে পুনর্বাসনের দাবি মিয়ানমারের...

  • প্রত্যাবাসন নিয়ে মিয়ানমারের দাবি মিথ্যা: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

  • জাতীয় ঈদগাহে আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা; কাল চট্টগ্রামে দাফন

  • প্রতিমা বিসর্জনে আজ শেষ হচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব

  • প্রস্তুতি ম্যাচ: জিম্বাবুয়েকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে বিসিবি একাদশ...

  • স্কোর: জিম্বাবুয়ে ১৭৮ (এবাদত ৫/১৯), বিসিবি ১৮১/২ (সৌম্য ১০২*)

অনিশ্চয়তা সামনে রেখে পালিত হচ্ছে জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস

অনিশ্চয়তা সামনে রেখে পালিত হচ্ছে জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস

একদিকে কয়লা কেলেঙ্কারি, অন্যদিকে মাঝ সমুদ্রে সাড়ে তিন মাস ধরে অলস এলএনজিভর্তি জাহাজ। জ্বালানি খাতের গুরুত্বপূর্ণ দুই উপাদানের এমন দুর্দিন দেখা যায়নি কখনো। ফলে, দিন দিন অনিশ্চয়তা আর অনাস্থা বাড়ছে ব্যবহারকারীদের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্যবস্থাপনার এমন ঘাটতি নিয়ে সম্ভব হবে না ভবিষ্যতে বড় লক্ষ্যমাত্রার বাস্তবায়ন। এ অবস্থা সামনে রেখে আজ পালিত হচ্ছে, জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস।

এখনো জ্বালানি খাতের বেশিরভাগ নির্ভরতা গ্যাসের ওপর। কিন্তু, চাহিদার সাথে পাল্লা দিয়ে দিন দিন বাড়ছে ঘাটতির পরিমাণ। আর এই ঘাটতি কমাতে অনুসন্ধানের বদলে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে আমদানির। কিন্তু বাস্তবতা হলো উত্তাল সমুদ্রে এলএনজি ভর্তি জাহাজ ভাসছে সাড়ে তিন মাস ধরে। যার মধ্যে থাকা প্রায় ৩শ কোটি ঘনফুট সমপরিমাণ গ্যাস কিনতে সরকারের খরচ হয়েছে অন্তত ২শ কোটি টাকা। কিন্তু সময়মতো ব্যবহার না হওয়ায় খোয়া যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে ৬ শতাংশ গ্যাস। অথচ এই গ্যাস ব্যবহার করে শিল্প মালিকরা বাড়াতে চেয়েছিলেন বিনিয়োগ এবং কর্মসংস্থান। সমস্যা হলো এতো কিছুর পরও সম্ভব হয়নি সংযোগ দেয়া। যেজন্য অপেক্ষা করতে হবে আরো মাস খানেক।

গ্যাসের বাইরে জ্বালানি খাতে আরো এক কেলেঙ্কারি নিয়ে এসেছে একমাত্র কয়লা খনি। যা তুলে ধরেছে এই খাতের অব্যবস্থাপনার পরিষ্কার ছবি। আর এই অব্যবস্থাপনার খেসারত দিতে হয়েছে দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে। অথচ, কয়লা খনির দীর্ঘ সময়ের এই অব্যবস্থাপনা ঠেকাতে কোনো উদ্যোগই আসেনি সরকারিভাবে। আর এসব বিষয়ে প্রতিমন্ত্রীর ব্যাখ্যা হলো, প্রতিষ্ঠানগুলোকে আরো শক্তিশালী হওয়ার বিকল্প নেই। ২০৩০ সাল নাগাদ দেশের জ্বালানি খাতে বছরে লেনদেন হবে প্রায় ২০ বিলিয়ন ডলার। প্রশ্ন হলো, সাম্প্রতিক অভিজ্ঞতা সামনে রেখে কিভাবে সামলানো যাবে এমন অবস্থা?

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর