channel 24

সর্বশেষ

  • সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ স্লোগানে...

  • আওয়ামী লীগের ইশতেহারে ২১ দফা অঙ্গীকার...

  • অতীতের ভুলভ্রান্তি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

  • বিএনপির নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করলেন মির্জা ফখরুল...

  • জাতীয় সংসদে উচ্চকক্ষ প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি...

  • রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় ভারসাম্য আনাসহ ১৯ প্রতিশ্রুতি

  • নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না খালেদা জিয়া...

  • প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে রিট তৃতীয় বেঞ্চেও খারিজ

  • জামায়াতের ২২ নেতার প্রার্থিতা বাতিলে হাইকোর্টের রুল...

  • তিন কার্যদিবসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে ইসিকে নির্দেশ

রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্থিক রেকর্ড করেছে ফিফা

রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্থিক রেকর্ড করেছে ফিফা

শুধু আয়োজনে নয়, আর্থিক দিক দিয়েও অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। এবার ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছে ফিফা। যা ব্রাজিল বিশ্বকাপ থেকেও ২৫ শতাংশ বেশি।

লাভবান হয়েছে অ্যাডিডাস, কোক সহ ফিফার স্পন্সর প্রতিষ্ঠানগুলোও। আর প্রতিবারের মতো এবারো, বিশ্বকাপের এই আয় থেকে একটি অংশ পাবে বাংলাদেশসহ ফিফার সব সদস্য দেশ।

গ্রেটেস্ট শো অন দ্য আর্থ ঘিরে পুরো একমাস শুধু রাশিয়া নয় ব্যস্ত ছিলো বিশ্ব। ফ্রান্সের শিরোপা তোলার মধ্য দিয়ে পর্দা নামে আসরের। দলগুলোর সাফল্য ব্যর্থতা নিয়ে হিসাব নিকাশ এখনো চলছে। চলছে ফিফার সাফল্য ব্যর্থতা নিয়েও।

তবে ব্যবসায়িক দিক দিয়ে সফল এবারের আসর তা ঘোষণা করেছে ফিফা। যেখানে পুরণ হয়েছে আয়ের লক্ষ্য। আসর জুড়ে ফিফার মোট আয় ৬ বিলিয়ন ডলার। যা ২০১৪ আসর থেকে ২৫ শতাংশ বেশি। ব্রাজিল আসরে ফিফার আয় হয়েছিলো ৪ দশমিক আট বিলিয়ন ডলার আর লাভ হয়েছিলো ২.৬ বিলিয়ন।

রাশিয়া আসর থেকে আয় কৃত ৬ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে ৩ বিলিয়ন এসেছে সম্প্রচার সত্বে। যা ছাড়িয়ে গেছে আগের সব রেকর্ড। ২০১৪ ও ২০১০এ সম্প্রচার সত্ব থেকে এসেছিলো ২ দশমিক চার মিলিয়ন ডলার। ২০০৬ ও ২ এ সেই অঙ্ক ছিলো আরো কম।

আর্থিক ভাবে লাভবান হয়েছে ফিফার স্পন্সর প্রতিষ্ঠানগুলোও। স্পোর্টস ব্র্যান্ড অ্যাডিডাস যেমন শুধু মাত্র সামাজিক  মাধ্যমেই আয় করেছে ৬৩.৬ মিলিয়ন ডলার। ফিফারা আরেক স্পন্সর কোকা কোলা এক ট্রফি ট্যুর দিয়েই আয় করেছে ৫.৫ মিলিয়ন ডলার। আর স্পোর্টস ড্রিঙ্ক পাওয়ারএড আয় করেছে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ ডলার।

ফিফার হিসাবে সব মিলিয়ে ৭.৭ মিলিয়ন সমর্থক ভ্রমণ করেছে রাশিয়ায়। যা ২৬ থেকে ৩১ বিলিয়ন ডলার যোগ করেছে দেশটির জাতীয় অর্থনীতিতে। সৃষ্টি করেছে দুই লাখ ২০ হাজার নাগরিকের কর্মসংস্থান।

বিশ্বকাপের এই আয় থেকে লাভবান হবে বাংলাদেশসহ সদস্য দেশগুলোও। যেখানে  ফিফার বার্ষিক ১ দশমিক ০৫ মিলিয়ন ডলার অনুদানের সাথে যোগ হতে পারে আরো আড়াই লাখ মার্কিন ডলার।

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর