channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে পিছিয়ে নারীর অংশীদারিত্ব

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে পিছিয়ে নারীর অংশীদারিত্ব

ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে তথ্যপ্রযুক্তির বিশেষ গুরুত্ব থাকলেও নারীর অংশীদারীত্বের প্রশ্নে অনেকটাই পিছিয়ে এ খাত। 

দেশীয় বিভিন্ন সংস্থার জরিপ বলছে, এ খাতে নারীর অংশগ্রহণ ১০ শতাংশের বেশি নয়। এ বিষয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী। সরকারের রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিশেষ গুরুত্বপূর্ন খাত তথ্যপ্রযুক্তি। বর্তমানে এ খাতে কমবেশি ১৩ লাখ পেশাজীবির মাধ্যমে আয় হচ্ছে প্রায় ৮শ মিলিয়ন ডলার/প্রায় সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা। 

সরকারের লক্ষ্য ২০২১ সাল নাগাদ ২০ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে ৫ বিলিয়ন ডলার/৪৫ হাজার কোটি টাকা আয়। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এ খাতে নারীর গ্রহণযোগ্য অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করা প্রয়োজন, যা বর্তমানে সন্তোষজনক নয়। তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক দেশিয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের গবেষনা অনুযায়ী, দেশে এ খাতে নারীদের অংশগ্রহণ কমবেশি ১০ শতাংশ।

তথ্যপ্রযুক্তি খাত ব্যবসায়িদের সংগঠন বেসিসের এই অন্যতম শীর্ষ নেতা মনে করেন, মূলত পারিবারিক, সামাজিক এবং শিক্ষাগত এই তিনটি কারন এখাতে নারীদের অংশগ্রহনের প্রধান চ্যালেঞ্জ। জাতিসংঘের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়ন শীর্ষক কার্যক্রমের পরিচালক জানান, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নারীদের সম্পৃক্ত করতে  সঠিক প্রশিক্ষণ আর দিকনির্দেশনার ব্যাপারে কাজ করছেন তারা। এ খাতে নারী উদ্যোক্তাদের সুযোগ বাড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহনের পাশাপাশি হাতেকলমে শিক্ষণ কার্যক্রম চালানো হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। কয়েক বছরের মধ্যে যার সুফল মিলবে বলে আশা তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রীর। ২০৩০ নাগাদ এ খাতে নারী পুরুষের সমান অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করাই সরকারের লক্ষ্য।

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর