channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

সৌদি আরবের রোষানলে লেবানন

সৌদি আরবের রোষানলে লেবানন

সৌদি আরবের রোষানলে কাতারের মতো অর্থনৈতিক সংকটে পড়তে যাচ্ছে, লেবানন। এমনই মত বিশ্লেষকদের। তারা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী সাদ হারির পদত্যাগে জনমনে হতাশার পাশাপাশি বন্ধ গেছে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান প্রকল্প। তবে, কারো কারো মতে, লেবাননকে শাস্তি গিয়ে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বে সৌদি জোটও।

অভ্যন্তরীণ নানা সংকট কাটিয়ে যখন অর্থনেতিক উন্নয়নের পথে লেবানন, ঠিক সেই মুহূর্তেই প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ। যা দেশটির অর্থনীতিকে ঠেলে দিয়েছে, অনিশ্চয়তার মুখে।  

গেল বছর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়ার পরই উন্নয়নমুখি বেশ কিছু প্রকল্প হাতে নেন, সাদ আল হারিরি। প্রায় এক যুগ পর পাস হয়, নতুন বাজেটও। বাড়ানো হয় সরকারি চাকুরীজীবীদের বেতন। সাথে করের পরিমাণও। প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর লেবাননে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে চালু হয় কয়েকটি প্রকল্পও।

বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, হঠাৎ করে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগে, অর্থনৈতিক মন্দার মুখে পড়তে পারে লেবানন।

লেবাননের বেবলস ব্যাংকের জেষ্ঠ্য অর্থনীতিবিদ নাসেব ঘাবরিল বলেন, 'রাষ্ট্রনেতার পদত্যাগ সাধারণ মানুষের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি করেছে। এতে কমে আসতে পারে অর্থনীতির গতি। ইতোমধ্যে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান বন্ধ হয়ে গেছে। এমন অবস্থায় আবারো সংকটের মুখে পড়বে দেশের অর্থনীতি।'

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, কাতারের মতো লেবাননের কর্মীদের ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে, সৌদি সরকার। দেশটির অবকাঠামোগত উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুত এক লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, লেবাননের প্রতি কঠোর হলে তার প্রভাব পড়বে, সৌদি অর্থনীতিতেও। কেননা, দেশটির গুরুত্বপূর্ণ সব তেলক্ষেত্রে'র পরিচালনায় রয়েছেন লেবানিজরা।

অর্থনীতিবিদ কামেল ওয়াজনি বলেন, 'লেবাননের তেল ও গ্যাস খাতে অনেক বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে। দীর্ঘদিনের সহযোগিতা আর বিশ্বাসযোগ্যতার ভিত্তিতে এ ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। তাই লেবাননের সাথে সম্পর্কোচ্ছেদ কিংবা যেকোন ভুল সিদ্ধান্তে উল্টো নিজেরাই ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে সৌদিসহ প্রতিবেশিরা। 

২০১১ পর্যন্ত জিডিপির হিসাবে আরব বিশ্বের অন্যতম সমৃদ্ধ দেশ ছিলো-লেবানন। কিন্তু সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়, দেশটির অর্থনীতি। বর্তমানে ৬ লাখ কোটি টাকার সরকারি ঋণ লেবাননের কাঁধে। যা দেশটির জিডিপির চেয়েও ১৪০ গুণ বেশি।

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর